kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৪ আশ্বিন ১৪২৭ । ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০। ১১ সফর ১৪৪২

যোগাভ্যাস

চেয়ার পিজিয়ন

৯ জুলাই, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চেয়ার পিজিয়ন

বয়োজ্যেষ্ঠ মানুষের উপযোগী এই আসনটি আর্থ্রাইটিস ও অন্যান্য কারণে কোমর ও নিতম্বের পেশির জড়তা কমাতে সাহায্য করে। মাটিতে বসে আসন করার অসুবিধার কারণে এই যোগাসনটি বয়স্কদের জন্য অত্যন্ত উপযোগী

 

পদ্ধতি

১. দুই পা দৃঢ়ভাবে মাটিতে রেখে শিরদাঁড়া সোজা করে চেয়ারে বসুন। মাথা ও ঘাড় সোজা থাকবে। চেয়ারে হেলান না দিয়ে সোজা থাকতে হবে। দুই হাত আলগা করে রাখুন কোলের ওপর। এটিই চেয়ার পিজিয়ন আসন শুরুর অবস্থান।

২. এবার চেয়ারের সামনের দিকে এগিয়ে আসুন। বাঁ পা ভাঁজ করে ডান ঊরু বা হাঁটুর ওপর রাখুন। পা তুলতে অসুবিধা হলে বাঁ হাত দিয়ে হাঁটু তুলতে পারেন।

৩. নিতম্ব থেকে সামনের দিকে সোজাসুজি ঝুঁকে আসুন। খেয়াল রাখবেন মেরুদণ্ড যেন বেঁকে না যায়।

৪. এই অবস্থানে ধীরে ধীরে শ্বাস-প্রশ্বাস নিতে নিতে মনে মনে তিন থেকে পাঁচ পর্যন্ত গুনতে হবে। খেয়াল রাখবেন, শরীরে যেন বাড়তি চাপ না পড়ে। যতটুকু শরীরে সয় এর বেশি চাপ দিয়ে বা জোর করে আসন অভ্যাস করবেন না।

৫. এবার পা নামিয়ে নিন। একইভাবে ডান পা ভাঁজ করে বাঁ ঊরু বা হাঁটুর ওপর রেখে আসনটি অভ্যাস করতে হবে।

৬. দুই পায়ের পর্যায়ক্রমে অভ্যাস করলে এক রাউন্ড সম্পূর্ণ হবে। এভাবে তিন-পাঁচ রাউন্ড অভ্যাস করতে হবে।

৭. অভ্যাস শেষ হলে শুরুর অবস্থানে ফিরে আরাম করে বসুন। চোখ বন্ধ করে অনুভব করুন কেমন বোধ করছেন।

সতর্কতা

যদি হাঁটু শক্ত হয়ে যায়, পা তুলতে অসুবিধা হয়, যেটুকু তোলা সম্ভব সেটুকু তুলে আসন অভ্যাস করতে পারেন। হাঁটুর নিচ পর্যন্ত পা তুলে চেয়ার পিজিয়ন আসনটি অভ্যাস করতে হবে। এ ছাড়া পিঠ বা নিতম্বে যদি কোনো চোট বা বা খুব ব্যথা থাকে তবে আসনটি অভ্যাস করতে হবে ধীরে ধীরে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা