kalerkantho

শুক্রবার । ২৩ শ্রাবণ ১৪২৭। ৭ আগস্ট  ২০২০। ১৬ জিলহজ ১৪৪১

চাকরি হারিয়ে হতাশা

দুই মেয়েকে গলা টিপে হত্যার পর বাবার আত্মহত্যার চেষ্টা

পটিয়া (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি   

২ জুলাই, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চট্টগ্রামের পটিয়ায় দুই মেয়েকে গলা টিপে হত্যার পর আত্মহত্যার চেষ্টা চালিয়েছেন এক ব্যক্তি। তাঁর নাম মোখেন্দু বড়ুয়া (৫৬)। গতকাল বুধবার ভোররাতে কাশিয়াইশ ইউনিয়নের ভাণ্ডারগাঁও গ্রামে মোখেন্দুর শ্বশুরবাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। স্থানীয়রা বলেছে, করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে মাস দুয়েক আগে চাকরি হারান মোখেন্দু। এতে চরম অর্থকষ্টে পড়েন তিনি। হতাশা থেকে তিনি এই ঘটনা ঘটিয়ে থাকতে পারেন।

পাঁচ বছর আগে ক্যান্সারে স্ত্রী কণিকা বড়ুয়ার মৃত্যুর পর থেকে শ্বশুরবাড়িতেই ছেলে-মেয়েদের নিয়ে থাকতেন মোখেন্দু।

মোখেন্দুর বাড়ি লোহাগাড়ার পদুয়ায়। হত্যাকাণ্ডের শিকার দুই মেয়ে হলো শশি বড়ুয়া ওরফে টুকু বড়ুয়া (১৪) এবং নিশু বড়ুয়া (১১)। টুকু কাশিয়াইশ উচ্চ বিদ্যালয়ে অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী আর নিশু ভাণ্ডারগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পঞ্চম শ্রেণিতে পড়ত।

কাশিয়াইশ ইউপির সদস্য মো. ইউসুফ জানান, মোখেন্দুর বাড়ি লোহাগাড়ার পদুয়ায়। তাঁর স্ত্রী কণিকা বড়ুয়া পাঁচ বছর আগে ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে মারা যান। এরপর দুই মেয়ে ও এক ছেলেকে নিয়ে শ্বশুরবাড়িতেই থাকতেন মোখেন্দু। চাকরি করতেন খুলনার একটি বেসরকারি শিপইয়ার্ডে। ইউসুফ বলেন, ‘তিন মাস আগে করোনার প্রাদুর্ভাবের কারণে লকডাউন শুরু হলে তিনি দুই মাস আগে খুলনা থেকে শ্বশুরবাড়িতে চলে আসেন। অর্থকষ্টে পড়ে হয়তো তিনি এ ঘটনা ঘটিয়েছেন।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা