kalerkantho

রবিবার । ২১ আষাঢ় ১৪২৭। ৫ জুলাই ২০২০। ১৩ জিলকদ  ১৪৪১

বগুড়ার মরিচের আলোকচিত্রের মস্কো জয়

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৭ জুন, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বগুড়ার মরিচের আলোকচিত্রের মস্কো জয়

বগুড়ার পুলিশ সুপার মো. আলী আশরাফ ভূঞার তোলা ‘রেড চিলিস হারভেস্টিং’ শীর্ষক এ আলোকচিত্র জিতেছে মস্কো ইন্টারন্যাশনাল ফটোগ্রাফি অ্যাওয়ার্ড (শৌখিন ক্যাটাগরি)। গত ২ জুন এই পুরস্কার ঘোষণা করা হয়।

‘রেড চিলিস হারভেস্টিং’—শীর্ষক একটি আলোকচিত্র মস্কো ইন্টারন্যাশনাল ফটোগ্রাফি অ্যাওয়ার্ড জয় করেছে। শৌখিন আলোকচিত্রী মো. আলী আশরাফ ভূঞার এই আলোকচিত্র ২০২০ সালে ‘বিজ্ঞাপন/ভ্রমণ/পর্যটন (শৌখিন)’ ক্যাটাগরিতে রৌপ্য পুরস্কার পেয়েছে।

জানা গেছে, গত ২ জুন ওই পুরস্কার ঘোষণা করা হয়। মস্কো ইন্টারন্যাশনাল ফটোগ্রাফি অ্যাওয়ার্ডের ওয়েবসাইটে মো. আলী আশরাফ ভূঞার আলোকচিত্র সম্পর্কে বলা হয়েছে, ‘বাংলাদেশি নারীরা বগুড়ায় লাল মরিচ শুকানোর কারখানায় লাল মরিচ বাছাই করছেন। সেখানে প্রায় দুই শ কারখানা আছে এবং দুই হাজারেরও বেশি নারী সেগুলোতে প্রতিদিন কাজ করেন। ১০ ঘণ্টা কাজের পর তাঁরা প্রায় দুই মার্কিন ডলার (১৬০ টাকা) পান। কিছু কিছু স্থানে তাঁরা এর চেয়েও কম মজুরি পান।’

আলোকচিত্রী মো. আলী আশরাফ ভূঞা পেশায় একজন পুলিশ কর্মকর্তা। তিনি বর্তমানে বগুড়ায় পুলিশ সুপার হিসেবে কর্মরত।

এ বছর মো. আলী আশরাফ ভূঞার আরো তিনটি আলোকচিত্র সম্মাননা পেয়েছে। এগুলোর মধ্যে বঙ্গবন্ধু সেতুর নিচে শীতে শীর্ণ যমুনা নদীর ছবি ‘বার্ডস আই ভিউ অব বঙ্গবন্ধু ব্রিজ’ (পাখির চোখে বঙ্গবন্ধু সেতুর দৃশ্য) আলোকচিত্রটি স্থাপত্য বিভাগে এবং শীতে শুকিয়ে যাওয়া যমুনা নদীর ছবি ‘ক্রসিং দ্য ডেড রিভার যমুনা’ এবং ‘ক্রসিং দ্য রিভার যমুনা’ ছবি দুটি ভ্রমণ বিভাগে সম্মাননা পেয়েছে।

রূপালী ব্যাংক কর্মকর্তা আলোকচিত্রী পিনু রহমানের তোলা আলোকচিত্র ‘চাইল্ডহুড দ্য বিউটিফুল স্টেশন অব লাইফ’ এবং চুড়িহাট্টায় ভয়াবহ আগুনের ছবি ‘ক্রাউড ভ্যালি আফটার ডেথ’ও সম্মাননা পেয়েছে। আলোকচিত্রী তানভীর হাসান রোহানের একটি আলোকচিত্র ও আলোকচিত্রের গল্প এ প্রতিযোগিতায় সম্মাননা পেয়েছে। শৌখিন আলোকচিত্রী তৌহিদ পারভেজ বিপ্লবের তোলা ‘পিংক ডাক’ আলোকচিত্রও সম্মাননা পেয়েছে। সম্পাদকীয় বিভাগে ‘কভিড-১৯ অ্যান্ড আইসোলেশন ক্রাইসিস’ শীর্ষক আলোকচিত্রের জন্য সম্মাননা পেয়েছেন পেশাদার আলোকচিত্রী মো. ফাহিম আহমেদ রিয়াদ।

জানা গেছে, ২০১৪ সালে মস্কো ইন্টারন্যাশনাল ফটোগ্রাফি অ্যাওয়ার্ড প্রবর্তন করা হয়। এর পর থেকে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের পেশাদার ও শৌখিন আলোকচিত্রীরা এতে অংশ নিয়ে আসছেন।

মন্তব্য