kalerkantho

সোমবার । ৬ আশ্বিন ১৪২৭ । ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০। ৩ সফর ১৪৪২

সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ

সম্পত্তির লোভে চিকিৎসককে ‘পাগল’ বানানো হলো

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৩ মে, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সম্পত্তির লোভে নিজের ছেলেকে পাগল ও মাদকাসক্ত সাজিয়েছেন এক মা! নিজের মায়ের বিরুদ্ধে এমনই এক বিস্ময়কর অভিযোগ তুলেছেন ডা. রাফেল মো. আনোয়ারুল কবির নামের এক চিকিৎসক। গতকাল শুক্রবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি সাগর-রুনি মিলনায়তনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, পারিবারিকভাবে প্রতারণা ও নির্যাতনের শিকার তিনি। তাঁর মা ডা. লতিফা সামসুদ্দিন ও বোনদের সহযোগিতায় পরিকল্পিতভাবে তাঁর স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি, টাকা-পয়সা ও পিতার সব সম্পত্তি, টাকা-পয়সা আত্মসাৎ করার জন্য তাঁকে পাগল ও নেশাগ্রস্ত সাজানো হয়। তাঁকে প্রায় ৯ বছর মাদকাসক্তি নিরাময় কেন্দ্রে আটক রাখা হয়।

তিনি আরো বলেন, তাঁর বাবা ডা. এ কে এম সামসুদ্দিনের যৌথ ট্যাক্স ফাইল ও যৌথ টিআইএন (ট্যাক্স আইডেন্টিফিকেশন নাম্বার) ছিল। এনবিআরের ১৯৮৪ সালের ৩৬ ধারা অনুযায়ী ট্যাক্স ফাইলের একমাত্র বৈধ উত্তরাধিকারী (লিগ্যাল হিয়ার) তিনি। তাঁর বাবা মারা গেলেও ১৯১৬ সালের লিগ্যাল হিয়ার আইন পরিবর্তন হওয়ার কারণে তাঁকে ট্যাক্স ফাইলে জীবিত দেখানো হয়েছে। এ ছাড়া তাঁর মা ডা. লতিফা সামসুদ্দিন তাঁর বাবা ডা. এ কে এম সামসুদ্দিনের সব স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি ও ব্যাংকে রেখে যাওয়া টাকা-পয়সা আত্মসাৎ করতে নানা কারসাজি করেন।

রাফেল বলেন, তিনি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। প্রাণ বাঁচাতে বিভিন্ন জায়গায় আত্মগোপনে থাকছেন। এ বিষয়ে থানায় সাধারণ ডায়েরিও করা হয়েছে। এ অবস্থায় মা ডা. লতিফা সামসুদ্দিন তাঁর সঙ্গে যে অন্যায়-অত্যাচার ও অধিকার থেকে বঞ্চিত করেছেন, তার দৃষ্টান্তমূলক বিচারের দাবিসহ শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান রাফেল।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা