kalerkantho

রবিবার। ২৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৭ জুন ২০২০। ১৪ শাওয়াল ১৪৪১

বিভিন্ন জেলায় আইসোলেশন কোয়ারেন্টিন, লকডাউন

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৪ এপ্রিল, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



বিভিন্ন জেলায় আইসোলেশন কোয়ারেন্টিন, লকডাউন

নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সারা দেশেই সতর্ক অবস্থানে রয়েছে প্রশাসন। প্রাণঘাতী এই ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার লক্ষণ আছে এমন রোগীর খবর পেলেই দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। আইসোলেশন, হোম কোয়ারেন্টিনের পাশাপাশি সংশ্লিষ্টদের বাড়ি লকডাউনের পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। একই সঙ্গে সন্দেহজনক রোগীদের নমুনা সংগ্রহ করে পাঠানো হচ্ছে পরীক্ষার জন্য। গতকাল শুক্রবার দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিরা এমন খবর পাঠিয়েছেন—

বগুড়ায় বিদেশফেরত ১৩০০ ব্যক্তি লাপাত্তা : বিদেশফেরত এক হাজার ২৯০ ব্যক্তিকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। তাদের খুঁজে বের করতে ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) সদস্যদের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে জেলায় ৯৭৬ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা সম্ভব হয়েছে। বাকি ৫৭ শতাংশেরই হদিস পাওয়া যাচ্ছে না।

কাহালুতে এক বাড়ি লকডাউন : কাহালু পৌর শহরে এক ব্যক্তির বাড়ি লকডাউন করেছে উপজেলা প্রশাসন। কুমিল্লার কর্মস্থল থেকে ২৬ এপ্রিল জ্বর ও সর্দি-কাশি নিয়ে ওই ব্যক্তি বাড়ি আসেন। পরে তাঁকে মোহাম্মদ আলী হাসপাতালের আইসোলেশনে নেওয়া হয়। নমুনা পাঠানো হয় রামেক হাসপাতালে।

কুমিল্লায় এক বাড়ি লকডাউন : মনোহরগঞ্জে একজনের নমুনা সংগ্রহ করে আইইডিসিআরে পাঠানো হয়েছে। একই সঙ্গে তার বাড়িটি লকডাউন করা হয়েছে।

তাহিরপুরে ৭ পরিবার হোম কোয়ারেন্টিনে : উপজেলার মাহতাবপুর গ্রামের বাসিন্দা পোশাক শ্রমিক জহিরুল হক (২২) সর্দি-কাশি ও জ্বরে আক্রান্ত হয়ে বুধবার গাজীপুরে হাসপাতালে মারা যান। পরদিন রাতেই লাশ বাড়িতে এনে দাফন করা হয়। এরপর লাশ পরিবহন ও দাফনের সঙ্গে সম্পৃক্ত সাতটি পরিবারের সদস্যদের হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার নির্দেশনা দিয়েছে উপজেলা প্রশাসন।

ঝালকাঠিতে ছয়জনের নমুনা সংগ্রহ : নমুনা আইইডিসিআরে পাঠানো হয়েছে। হোম কোয়ারেন্টিনে থাকা এসব ব্যক্তি জ্বর ও সর্দি-কাশিতে ভুগছেন।

গাজীপুরে এক নারী আইসোলেশনে : শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা এক নারীকে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। তিনি জ্বর, সর্দি-কাশি ও ডায়রিয়ায় ভুগছেন। বৃহস্পতিবার রাতে স্থানীয়দের খবরের ভিত্তিতে সদর থানা পুলিশ তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে।

আখাউড়ার সেই কর্মকর্তা করোনায় আক্রান্ত নন : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় স্থানীয় সরকার ও প্রকৌশল বিভাগে কর্মরত সেই কর্মকর্তা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত নন। আইইডিসিআরে তাঁর নমুনা পরীক্ষায় করোনাভাইরাসের অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছেন সিভিল সার্জন মোহাম্মদ একরাম উল্লাহ।

নড়াইলের সেই নার্স করোনামুক্ত : করোনায় আক্রান্ত সন্দেহে নড়াইল সদর হাসপাতালের সিনিয়র স্টাফ নার্স মাধবী রানী দাসকে গত বৃহস্পতিবার ঢাকার কুর্মিটোলা করোনা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তবে তাঁর দেহে ওই ভাইরাসের অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি বলে গতকাল জানানো হয়েছে।

রাজবাড়ীতে একজন আইসোলেশনে : পাংশা হাসপাতালে এক রোগীকে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আসার পর ওই রোগীর উপসর্গ দেখে করোনা আক্রান্ত সন্দেহে এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়।

শেরপুরে ১০ জনের নমুনা সংগ্রহ : ঝিনাইগাতীতে ১০ জনের নমুনা সংগ্রহ করে করোনা পরীক্ষার জন্য ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তাদের মধ্যে একজন উপজেলা প্রাণিসম্পদ বিভাগের কর্মকর্তা। তাঁকে ময়মনসিংহে পাঠানো হয়েছে। অন্যদের আইসোলেশন ও হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে।

হবিগঞ্জে ৯৩৬ জন মুক্ত, ১৮ জনের নমুনা প্রেরণ : জেলায় হোম কোয়ারেন্টিন শেষ হয়েছে ৩৬ জনের। অবশিষ্ট রয়েছে ১৬৮ জন। আইসোলেশনে আছে একজন। ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. মুখলেছুর রহমান উজ্জল জানান, নতুন করে ১৮ জনের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে।

শরীয়তপুরে আইসোলেশনে মারা যাওয়া যুবক করোনায় আক্রান্ত নন : সদর হাসপাতালের আইসোলেশনে মারা যাওয়া যুবকের শরীরে করোনাভাইরাস ছিল না বলে জানিয়েছেন শরীয়তপুরের সিভিল সার্জন ডা. এস এম আব্দুল্লাহ আল মুরাদ।

জামালপুরে ১১ জনের নমুনা সংগ্রহ : জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার উপসর্গ থাকা ১১ ব্যক্তির নমুনা সংগ্রহ করেছে। ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. কে এম শফিকুজ্জামান জানান, গত বৃহস্পতিবার করোনাভাইরাসের উপসর্গ থাকা ১০ জনের নমুনা সংগ্রহ করে গতকাল ময়মনসিংহে পাঠানো হয়েছে পরীক্ষার জন্য।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা