kalerkantho

রবিবার। ২৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৭ জুন ২০২০। ১৪ শাওয়াল ১৪৪১

করোনা চিকিৎসায় বসুন্ধরা হাসপাতাল

নারায়ণগঞ্জে এতিমখানা ও মসজিদে দোয়া

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি   

৩ এপ্রিল, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নারায়ণগঞ্জে এতিমখানা ও মসজিদে দোয়া

এ কে এম শামীম ওসমান গতকাল নারায়ণগঞ্জের সিভিল সার্জনের হাতে পিপিই তুলে দেন। ছবি : কালের কণ্ঠ

করোনা চিকিৎসায় ইন্টারন্যাশন্যাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরার চারটি কনভেনশন হল ও একটি ট্রেড সেন্টারকে পাঁচ হাজার শয্যার হাসপাতালে রূপান্তরিত করার সিদ্ধান্তে গতকাল বৃহস্পতিবার নারায়ণগঞ্জের এতিমখানা ও মসজিদে প্রার্থনা করা হয়েছে। এ সময় দেশ ও জাতির কল্যাণে বসুন্ধরা গ্রুপের এমন মহতী উদ্যোগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীরসহ তাঁদের পরিবারের সবার দীর্ঘায়ু কামনা করে মোনাজাত করা হয়।

নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য এ কে এম শামীম ওসমানের উদ্যোগ ফতুল্লার মুসলিমনগর এতিমখানা, অক্টোফিস আবু হানিফা এতিমখানা, অক্টোফিস বায়তুস সালাম মসজিদ ও ইসদাইর শাহি জামে মসজিদে এ দোয়ার আয়োজন করা হয়। এ ব্যাপারে এ কে এম শামীম ওসমান বলেন, ‘বসুন্ধরা গ্রুপ জন্মলগ্ন থেকেই দেশ ও জাতির কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছে। করোনা পরিস্থিতিতে জাতির কল্যাণে সেই ধারাবাহিকতা ধরে রেখে ইতিহাসের পাতায় নাম লিখিয়ে রাখল বৃহত্তর এই শিল্পগোষ্ঠী।’

ঘরে থেকে প্রমাণ করুন আপনারা সাহসী

এদিকে নারায়ণগঞ্জ রাইফেল ক্লাবে করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় বর্তমান সময়ে করণীয় সম্পর্কে অবহিত করতে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য এ কে এম শামীম ওসমান বলেছেন, ‘বর্তমান পরিস্থিতিতে আমার ও বড় ভাই সেলিম ওসমানের সংসদীয় এলাকার একজন মানুষকেও না খেয়ে মরতে দেব না। সরকারি সহায়তার পাশাপাশি আমাদের যা আছে তা দিয়েই সবাই ভাগ করে খাব। প্রয়োজনে কম খাব। কিন্তু সবাইকে নিয়ে খাব।’ তিনি আরো বলেন, ‘আপনারা যদি সাহসী হন তাহলে ঘরে থেকে তা প্রমাণ করুন। বর্তমান পরিস্থিতিতে ঘরের বাইরে রাস্তায় ঘুরে বেড়ানো কোনো বাহাদুরির কাজ নয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সময়োচিত পদক্ষেপে এখনো আমরা ভালো আছি। সাধারণ মানুষের কাজ হচ্ছে তাঁরা নিজের জন্য, পরিবারের জন্য এবং সর্বোপরি দেশের ভালোর জন্য এই মুহূর্তে ঘরে থাকবেন।’

এ সময় নারায়ণগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. মো. ইমতিয়াজ আহমেদ ও সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা নাহিদা বারিক উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা