kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৮ আষাঢ় ১৪২৭। ২ জুলাই ২০২০। ১০ জিলকদ  ১৪৪১

বখাটে ও যৌতুকলোভীর কাণ্ড

ফতুল্লা ও তারাকান্দায় দুই নারীকে পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টা

নারায়ণগঞ্জ ও ফুলপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি   

২৪ মার্চ, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



পৃথক ঘটনায় দুই নারীকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যাচেষ্টার ঘটনা ঘটেছে। এর মধ্যে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লায় কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় এক গার্মেন্টকর্মীর শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দিয়েছেন এক বখাটে। অন্য ঘটনায় ময়মনসিংহের তারাকান্দায় যৌতুক না পেয়ে এক গৃহবধূর শরীরে আগুন ধরিয়ে দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এ দুটি ঘটনায় চারজনকে আটক করেছে পুলিশ।

জানা গেছে, ফতুল্লায় কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় গার্মেন্টকর্মী মাহিনুর বেগমের (৩৮) শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেন তাঁর দূর সম্পর্কের দুলাভাই নূর ইসলাম। এ সময় মাহিনুরের চিৎকারে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এলে বখাটে নূর ইসলাম পালিয়ে যান। পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাঁকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে নিয়ে যায় স্থানীয় লোকজন। গত রবিবার রাত সাড়ে ৮টায় ফতুল্লা পাইলট স্কুল সংলগ্ন আলী আহম্মদের বাড়ির গলিতে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় দগ্ধ মাহিনুরের মেয়ে আঁখিনুর আহ্নিকা বখাটে নূর ইসলাম, তাঁর স্ত্রী ও ছেলেকে আসামি করে ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা করেন। পুলিশ রাতেই বখাটের স্ত্রী হাসিনা বেগম ও ছেলে ইমরানকে গ্রেপ্তার করে।

আঁখিনুর জানান, তাঁর মায়ের শরীরের ৬০ শতাংশ পুড়ে গেছে।

জানা গেছে, নূর ইসলাম নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মীর সোহেল আলীর প্রাইভেট কারের চালক। এ বিষয়ে সোহেল আলী জানান, নূর ইসলামকে এক মাস আগে চাকরি থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে।

ফতুল্লা মডেল থানার এএসআই তারেক আজিজ প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে বলেন, নূর ইসলাম তাঁর দূর সম্পর্কের শ্যালিকা মাহিনুরকে দীর্ঘদিন ধরে কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছিলেন। বিষয়টি জানাজানি হলে মাহিনুরকে নূর ইসলামের স্ত্রী হাসিনা বেগম মারধর ও এলাকাছাড়া করার হুমকি দেন। এ নিয়ে ভয়ে মাহিনুর তাঁর পরিবারের লোকজনকে বিষয়টি জানান এবং থানায় অভিযোগ করার সিদ্ধান্ত নেন। বিষয়টি জানতে পেরে রবিবার রাত সাড়ে ৮টায় গার্মেন্ট থেকে বাসায় ফেরার পথে দাপা ইদ্রাকপুর এলাকায় এক গলিতে মাহিনুরের পথরোধ করেন নূর ইসলাম। এরপর তাঁর মাথা ও শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেন।

ওসি আসলাম হোসেন জানান, এ ঘটনায় দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অন্য আসামিকে গ্রেপ্তারে জোর অভিযান চলছে।

এদিকে তারাকান্দায় স্বামীর বাড়িতে গত রবিবার বিকেলে শিরীন আক্তার (২৫) নামের এক গৃহবধূকে যৌতুকের জন্য গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে হত্যাচেষ্টার ঘটনা ঘটে। উপজেলার কাকনী ইউনিয়নের পঙ্গুয়াই গ্রামে ঘুমন্ত অবস্থায় স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজন এই হত্যাচেষ্টা চালায় বলে অভিযোগ উঠেছে। আগুনে তাঁর শ্বাসনালিসহ শরীরের প্রায় ৭৫ শতাংশ পুড়ে গেছে। ঢাকা মেডিক্যালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন শিরীনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

এ ঘটনায় গৃহবধূর বাবা তারাকান্দা থানায় তিনজনকে আসামি করে মামলা করেছেন। পুলিশ শাশুড়ি ফুলে বেগম (৫০) ও ননদ শিউলি বেগমকে গ্রেপ্তার করেছে। অভিযুক্ত স্বামী সোহেল মিয়া পলাতক।

ভুক্তভোগী পরিবার ও থানা সূত্রে জানা যায়, পঙ্গুয়াই গ্রামের সিরাজ আলীর মেয়ে শিরীন আক্তারের প্রায় তিন বছর আগে বিয়ে হয় একই এলাকার সোহেল মিয়ার সঙ্গে। বিয়ের পর থেকে সোহেল যৌতুকের জন্য শিরীনকে প্রায়ই মারধর করতেন। সিরাজ আলী জানান, মোটা অঙ্কের টাকা যৌতুক দাবি করেন সোহেল। তা দিতে না পারায় সোহেলসহ মেয়ের শ্বশুরবাড়ির লোকজন এই হত্যাচেষ্টা চালায়।

কাকনী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মশিউর রহমান রিপন জানান, যৌতুকের জন্যই এ ঘটনা ঘটানো হয়েছে।

মন্তব্য