kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৪ জুন ২০২০। ১১ শাওয়াল ১৪৪১

আজাদ যতটা পুলিশ তারও বেশি মানুষ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২০ মার্চ, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বুধবার দুপুর ২টার দিকের ঘটনা। নরসিংদীর পলাশ বাজার সংলগ্ন ব্রিজের পাশে সাদা কাফনে মোড়ানো এক বৃদ্ধ পড়ে আছেন। পথচারীরা তাঁকে ‘লাশ’ ভেবে ৯৯৯-এ ফোন দেয়। এরপর পুলিশ গিয়ে দেখতে পায়, কাফনে মোড়ানো বৃদ্ধ ব্যক্তিটি কোনো লাশ নয়, জীবিত এক মানুষ।

মানবতার এই গল্পের বাকিটা শোনাতে গিয়ে পলাশ থানার ওসি শেখ মো. নাছির উদ্দিন বলেন, ফোন পাওয়ার পর বিষয়টি দেখতে তিনি দায়িত্ব দেন এসআই আজাদ হোসেনকে। তিনি ঘটনাস্থলে গিয়ে কাফনের ভাঁজ খুলে  দেখেন, বৃদ্ধের ঠোঁট নড়ছে। দ্রুত হাসপাতালে নেওয়ার জন্য গাড়ি খুঁজতে থাকেন আজাদ। আশপাশে গাড়ি বলতে একটি ভ্যান পড়ে ছিল; কোনো চালক ছিল না। শেষমেশ লোকটিকে ভ্যানে উঠিয়ে নিজেই চালাতে শুরু করেন। লোকটির শরীর থেকে দুর্গন্ধ বের হচ্ছিল। পলাশ বাজারে গিয়ে একটি লুঙ্গি কিনে তাঁকে পরিয়ে দেন এবং কাফনের কাপড় খুলে ফেলেন। অবশেষে লোকটিকে নিয়ে পলাশ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যান আজাদ। কিন্তু ট্রলি নেই হাসপাতালে। তখন লোকটিকে কোলে করে হাসপাতালের দোতলায় উঠান আজাদ। হাসপাতালে কোনো চিকিৎসক লোকটির গায়ের দুর্গন্ধে তাঁর কাছে আসতে চাচ্ছিলেন না। পরে আজাদ গামছা দিয়ে লোকটির সারা শরীর মুছে দিয়ে হাসপাতালে ভর্তি করান। চিকিৎসা দেওয়ার পর সন্ধ্যার দিকে তাঁর জ্ঞান ফেরে। তবে লোকটি কথা বলতে পারছিলেন না।

আজাদ হোসেন বলেন, ‘পুলিশ হিসেবে নয়, মানুষ হিসেবে লোকটিকে হাসপাতালে নিয়ে যাই। তাঁর প্রস্রাব-পায়খানা নিজের হাতে পরিষ্কার করেছি। লোকটি এখন অনেকটাই সুস্থ। তাঁর নাম আব্দুল হক (৮০)। আত্মীয়-স্বজনের খোঁজে কাপাসিয়ায় গিয়েও কাউকে পাওয়া যায়নি।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা