kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ২৯  মে ২০২০। ৫ শাওয়াল ১৪৪১

ধর্ষণের অভিযোগ

রাবির দুই ছাত্র জেলে

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৩ মার্চ, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) দুই ছাত্রকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। রাজধানীর পল্লবীতে শিশু ধর্ষণে অভিযুক্ত একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। দিনাজপুরের হিলিতে তৃতীয় শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে আটক করা হয়েছে দুজনকে। পটুয়াখালীর গলাচিপায় অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণের ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। এদিকে মানিকগঞ্জের শিবালয়ে স্কুলছাত্রীকে অপহরণ করে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা করা হয়েছে আদালতে। এ ব্যাপারে প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর :

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় : গত বুধবার রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শাহ মখদুম হল থেকে গ্রেপ্তারের পর গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে অভিযুক্তদের আদালতে পাঠানো হয়। পরে আদালত অভিযুক্তদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

গ্রেপ্তারকৃত দুই ছাত্র হলেন—বিশ্ববিদ্যালয়ের লোকপ্রশাসন বিভাগের মো. জাহিদ হাসান শোভন (২৬) এবং সমাজবিজ্ঞান বিভাগের তরুণ (২৫)। তাঁরা দুজনই ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী। গত বুধবার রাতে ভুক্তভোগী ছাত্রীর বাবা ও মা নগরীর মতিহার থানায় অভিযুক্তদের নামে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন। মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, ভুক্তভোগী ছাত্রী জাহিদ হাসানের কাছে প্রাইভেট পড়তেন। গত ১৫ ফেব্রুয়ারি সকালে ওই ছাত্রী তাঁর দুই সহপাঠীর সঙ্গে পড়তে যান। পড়া শেষে জাহিদ গল্প করার কথা বলে ওই ছাত্রীকে নগরীর কাজলা এলাকায় রাজশাহী কমার্স কলেজের পাশে তরুণের বোনের বাসায় নিয়ে যান। সেখানে ওই ছাত্রীকে ধর্ষণ করেন জাহিদ। এ সময় তরুণ পাশের কক্ষে বসে টিভি দেখছিলেন। জাহিদ ওই ছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ঘটনাটি কাউকে না জানানোর জন্য বলেন। পরবর্তী সময়ে ওই ছাত্রী একাধিকবার বিয়ের কথা বললে জাহিদ বিষয়টি বারবার এড়িয়ে যেতে থাকেন। এ ব্যাপারে মতিহার থানার ওসি এস এম মাসুদ পারভেজ বলেন, ‘আদালত ওই দুই ছাত্রকে কারাগারে পাঠিয়েছেন।’

রাজধানী : পল্লবীর কালশী এলাকায় গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে আট বছরের এক শিশুকে (৮) ধর্ষণ করা হয়েছে। পরে শিশুটিকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ঘটনার পরপরই অভিযুক্ত নাজির হোসেনকে (২৫) গ্রেপ্তার করেছে পল্লবী থানা পুলিশ।

গলাচিপা : গলাচিপায় অষ্টম শ্রেণির ছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ করেছেন তাঁর চাচাতো ভাই মাসুম। পরে ছাত্রীটি তিন মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লে ছেলের মা নানা কৌশলে অবৈধভাবে গর্ভপাত ঘটান। এ ঘটনায় অভিযুক্ত মাসুম (১৯) ও তাঁর বাবা বেল্লাল হাওলাদারসহ পাঁচজনের নামে গলাচিপা থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেছেন ছাত্রীটির মা। এ ঘটনায় এখনো কেউ গ্রেপ্তার হয়নি।

মানিকগঞ্জ : শিবালয়ে অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় ছাত্রীর মা অপহরণ করে ধর্ষণের অভিযোগে রানা মীর নামের এক যুবকের নামে আদালতে মামলা করেছেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা