kalerkantho

বৃহস্পতিবার  । ২৬ চৈত্র ১৪২৬। ৯ এপ্রিল ২০২০। ১৪ শাবান ১৪৪১

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় কবিতাময় একটি সকাল

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি   

২৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আবহাওয়া প্রতিকূল। ফাল্গুনেও কুয়াশা। ঠাণ্ডা-গরমের মিশেলে রোগের ভয়। তাতে কি আর আটকানো যায় কবিতা প্রেমীদের? কবিতার টানে ভোরেই ভাঙল তাদের ঘুম। সাত সকালে তাদের কবিতার ঝংকারে ঘুম ভাঙল আরো অনেকের। যোগ দেয় সকালে হাঁটা ও ব্যায়ামে অভ্যস্তরা। এ যেন এক কবিতাময় সকাল।

বাংলাদেশ আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদ ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শাখা গতকাল শুক্রবার সকাল ৭টায় আয়োজন করে ‘সাত সকালের আবৃত্তি’। চলে সকাল ৯টা পর্যন্ত। পৌর এলাকার লোকনাথ দীঘির পারের এ আয়োজনকে অনেকে চিন্তাশীল আয়োজন বলে মন্তব্য করেন।

আয়োজকরা জানান, বাংলা কবিতাকে গণমানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্য নিয়েই এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। কুয়াশাস্নাত এত সকালে অনেক দর্শকের উপস্থিতি তাদের এ আয়োজনকে অনেকটাই সার্থক করেছে।

অনুষ্ঠানে কবিতা পাঠ করেন সুভাষ রঞ্জন রায় ও আবদুর রহিম। একক আবৃত্তি করেন তিতাস আবৃত্তি সংগঠনের সহকারী পরিচালক বাছির দুলাল, উত্তম কুমার দাস, আবরনি আবৃত্তিচর্চা কেন্দ্রের পরিচালক শারমিন সুলতানা। দলীয় আবৃত্তি করে তিতাস আবৃত্তি সংগঠন, আবরনি আবৃত্তিচর্চা কেন্দ্র, ভাষা ও সাহিত্য অনুশীলন কেন্দ্র।

অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক এ এস এম শফিকুল্লাহ। বাংলাদেশ আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. মনির হোসেনের সভাপতিত্বে ও প্রবর্তক আবৃত্তি সংসদের সাধারণ সম্পাদক সোহেল আহমদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ শামসুজ্জামান। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া আইন কলেজের অধ্যক্ষ অ্যাডভোকেট মো. হাবিবুল্লাহ, সুর সম্রাট দি আলাউদ্দিন সংগীতাঙ্গনের সম্পাদক কবি আবদুল মান্নান সরকার, রবীন্দ্র সংগীত সম্মিলন পরিষদের সভাপতি অধ্যাপক মানবর্দ্ধন পাল প্রমুখ।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা