kalerkantho

বৃহস্পতিবার  । ২৬ চৈত্র ১৪২৬। ৯ এপ্রিল ২০২০। ১৪ শাবান ১৪৪১

নীলফামারীতে জমজমাট চারুকলা উৎসব

ভুবন রায় নিখিল, নীলফামারী    

২৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নীলফামারীতে জমজমাট চারুকলা উৎসব

নীলফামারীর নীলসাগরে গতকাল আন্তর্জাতিক চারুকলা উৎসবের তৃতীয় দিনে প্রকৃতির সঙ্গে মিশে শিশু শিল্পীদের চিত্রাঙ্কন। ছবি : কালের কণ্ঠ

দেশ-বিদেশের শিল্পীদের মিলনমেলা। সে মেলায় যোগ দিয়েছে জেলার শিশুশিল্পীরাও। গুণী শিল্পীদের ছোঁয়ায় ছবি এঁকে উৎফুল্ল খুদে শিল্পীরা। তাদের ভাবনার কোঠায় স্থান মানুষ আর প্রকৃতির। আকৃষ্ট তারা সৌন্দর্য আর মানবিকতায়। ছবির ভাষায় বৈষম্য, অন্যায়, অবিচারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী তারা। প্রকৃতির সঙ্গে মিশে গাছতলা আর পথে-ঘাটে বসে কাঁচা হাতের রঙের ছোঁয়ায় ছবি এঁকে এমনই মনের ভাব প্রকাশ করেছে তারা। উৎসবে জারি, সারি, পালাগানের পাশাপাশি কারুশিল্পের প্রদর্শনীও চলছে।

বিভিন্ন দেশের ১২ জন শিল্পী, ১০০ তরুণসহ ১৬০ জন বাংলাদেশি শিল্পীর অংশগ্রহণে চলছে এ উৎসব। এতে জেলার ২০টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ২০০ শিক্ষার্থী সুযোগ পাচ্ছে বড় শিল্পীদের কাছ থেকে দেখা ও শেখার।

শিল্পকলাচর্চার মাধ্যমে মানবিক গুণাবলিসম্পন্ন ভবিষ্যৎ প্রজন্ম গড়ে তোলার লক্ষ্যে খুদে, তরুণ আর গুণী শিল্পীদের ওই মিলনমেলার আয়োজন। গত ২৬ ফেব্রুয়ারি শুরু হওয়া চার দিনের উৎসবটির গতকাল অতিবাহিত হয়েছে তৃতীয় দিন। আজ শনিবার সমাপনী অনুষ্ঠানের অংশে নীলসাগর চত্বরে প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হবে শিশু এবং গুণী শিল্পীদের আঁকা ছবি। দিন শেষে সন্ধ্যা ৬টায় বিদায়ের সুর বেজে উঠবে মিলনমেলাটির।

অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী অদিতি রায় বলে, ‘এমন একটি বড় আয়োজনে অংশ নিতে পেরে আনন্দিত আমি। এখানে এসে প্রকৃতিকে, মানুষকে, পশু-পাখিকে ভালো বাসতে শিখেছি। বুঝতে পেরেছি আর ছবি আঁকার বিষয়টি বেরিয়ে আসে ভালোবাসা থেকে।’ একই অনুভূতি প্রকাশ করে শিশুশিল্পী তমালিকা রায়, শাহরিয়ার রাফাত, রুনা আক্তারসহ অনেকে।

উৎসবে অংশ নিয়ে আনন্দিত বিদেশি শিল্পীরা। তাঁদের মধ্যে ভারত থেকে এসেছেন শিল্পী পামেলা দাসগুপ্ত। অনুভূতি ব্যক্ত করে তিনি বলেন, ‘এখানে এসে গাছপালাসহ প্রকৃতির সঙ্গে মিশে ছবি আঁকছি। শিশুরা উৎসবের আমেজ ফুটিয়ে তুলেছে। নিজে ছবি আঁকছি এবং তাদের ছবি আঁকা দেখছি, এটি একটি ব্যতিক্রম। অন্য কোথাও এমনটি ঘটেনি।’ একই ধরনের অনুভূতি প্রকাশ করেন নেপালের কমল কুমার হামাল, মিয়ানমারের মনথ্যাটসহ অনেকে।

গত বৃহস্পতিবার বিকেলে ওই মিলনমেলায় অংশগ্রহণ করেন উৎসব আয়োজনের প্রধান পৃষ্ঠপোষক নীলফামারী-২ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য আসাদুজ্জামান নূর, সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ, বরেণ্য শিল্পী অধ্যাপক রফিকুন নবী এবং বেঙ্গল ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান আবুল খায়ের লিটু।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা