kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৭ চৈত্র ১৪২৬। ৩১ মার্চ ২০২০। ৫ শাবান ১৪৪১

রোগের লক্ষণ এক

পাথরঘাটায় একই বাড়ির ১৫ সদস্য হাসপাতালে

পাথরঘাটা (বরগুনা) প্রতিনিধি   

২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পাথরঘাটায় একই বাড়ির ১৫ সদস্য হাসপাতালে

বরগুনার পাথরঘাটার টেংড়া এলাকার এক বাড়ির ১৫ সদস্য একই লক্ষণ নিয়ে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। এর আগে গত মঙ্গলবার একই বাড়ির মানিক মিয়া (৩০) নামের এক যুবককে হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা যান। সবারই জ্বর, পাতলা পায়খানা ও বমি ছিল। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, খাদ্য বিষক্রিয়ায় এটি হতে পারে। তবে চিকিৎসার পর তাদের স্বাস্থ্যের উন্নতি হচ্ছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আবুল ফাত্তাহ জানান, সদর ইউনিয়নের টেংড়া গ্রামের ইদ্রিস হাওলাদারের ছেলে মো. মানিক মিয়া পাতলা পায়খানা, বমি ও জ্বর নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পথে মারা যান। পেশায় তিনি জেলে। এরপরই ওই বাড়ির প্রথমে ৯ জন ও পরে আরো ছয়জন একই লক্ষণ নিয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়।

হাসপাতালে ভর্তির পর তাদের খাদ্য বিষক্রিয়ার ওষুধ দেওয়া হয়। বিষয়টি জেলা সিভিল সার্জন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, ঢাকায় আইসিডিডিআরবিকে জানানো হয়েছে। বরগুনার সিভিল সার্জন ডা. হুমায়ুন শাহিন খান পাথরঘাটার সেই গ্রামে রোগীদের বাড়ি পরিদর্শন করেছেন।

মানিকের বাবা ইদ্রিস হাওলাদার বলেন, ‘আমার ছেলের শরীর কাঁপুনি দিয়েই জ্বর আসে, পাতলা পায়খানা ও বমি হয়। আমাদের এলাকায় নলকূপ বা নিরাপদ পানি না থাকায় পুকুরের পানি না ফুটিয়েই পান করি।’

আক্রান্তরা হলো পিয়ারা বেগম (৪০), নাইম (১৪), শাহিনুর (২৬), শারমিন (২৬), তামান্না (১৪), নাসরিন (২৭), ইমা (১২), জারিফ (৮), দীনা (৮), মুক্তা (২২), শাহারিন (১১), মিরাজ (৩২), জহুরা (৮০) ও  নাজমুল (৩০), জান্নাতী (৯)। তাদের সবার বাড়ি একই এলাকায়। তারা একে অন্যের আত্মীয়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা