kalerkantho

শনিবার । ২১ চৈত্র ১৪২৬। ৪ এপ্রিল ২০২০। ৯ শাবান ১৪৪১

সাজেদুলের ইশতেহার

কর্মসংস্থানবান্ধব ও বসবাসযোগ্য ঢাকা গড়ার অঙ্গীকার

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৭ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নির্বাচনী ইশতেহারে কর্মসংস্থানবান্ধব, সমতাভিত্তিক, নিরাপদ ও বাসযোগ্য ঢাকা গড়ে তোলার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেছেন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থী ডা. আহাম্মদ সাজেদুল হক রুবেল। তিনি ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) নির্বাচনে মেয়র পদে কাস্তে মার্কা নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

ইশতেহার ঘোষণা উপলক্ষে গতকাল রবিবার দুপুরে রাজধানীর পুরানা পল্টনস্থ মুক্তি ভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে ডা. সাজেদুল বলেন, ‘অতীতে বুর্জোয়া শাসকগোষ্ঠীর প্রতিনিধিরাই নগরের মেয়রের দায়িত্বে ছিলেন। তাঁরা সাধারণ গরিব-মেহনতি-মধ্যবিত্ত মানুষকে বঞ্চিত করে শাসকগোষ্ঠীর নিরবচ্ছিন্ন সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিতের বিষয়টি প্রাধান্য দিয়েছেন। ফলে গুলশান-বনানী-বারিধারাসহ গুটিকয়েক এলাকা ছাড়া কোথাও নাগরিক সুবিধা নেই। আর এই নির্মম বাস্তবতা থেকে জনগণকে দূরে সরিয়ে রাখার জন্য তাঁরা ঢাকাকে সিঙ্গাপুর, লস-অ্যাঞ্জেলেস, ব্যাংকক বানানোর স্বপ্ন দেখিয়েছে। কিন্তু ফলাফল শূন্য। বরং নগরীতে এখন গ্যাস সংকট, যানজট, জলাবদ্ধতা, কালো ধোঁয়া, খাদ্যে ভেজাল, উন্নয়নের নামে লুটপাট, নদী-খাল-জলা ভরাট ও দখল, ক্যাসিনো বাণিজ্য, দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধিসহ হাজারো সংকট। তাই ভোট দেওয়ার আগে ভাবতে হবে, কাকে আমরা মেয়র নির্বাচিত করছি?’

ইশতেহার ঘোষণাকালে কাস্তে মার্কার এই প্রার্থী আরো বলেন, আটটি মন্ত্রণালয়ের ৫৬টি অধিদপ্তরের অধীন বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণে উন্নয়ন কার্যক্রম পরিচালনা করছে। পরিবেশবান্ধব প্রকৃত উন্নয়নের জন্য এসব প্রতিষ্ঠান ও অধিদপ্তর সমন্বয় জরুরি। পরিকল্পিত উন্নয়নের জন্য ‘নগর সরকার’ প্রতিষ্ঠা অনিবার্য হয়ে উঠেছে। তাই একদিকে ভোট চোর, দুর্নীতি, স্বৈরাচারী দুঃশাসন ও অন্যদিকে মানবতাবিরোধী যুদ্ধাপরাধী জঙ্গিবাদী চক্রকে রুখতে নিজস্ব শক্তি নিয়ে সাধারণ মানুষের সত্যিকারের জনপ্রতিনিধি নির্বাচন করতে হবে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সিপিবি সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম, সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ শাহ আলম, প্রেসিডিয়াম সদস্য লক্ষ্মী চক্রবর্তী ও আব্দুল্লাহ ক্বাফী রতন, সহ-সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ জহির চন্দন, কেন্দ্রীয় সম্পাদক রুহিন হোসেন প্রিন্স ও আহসান হাবিব লাবলু প্রমুখ।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা