kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১১ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৬ নভেম্বর ২০২০। ১০ রবিউস সানি ১৪৪২

মিন্নির জামিন বাতিল শুনানি ২ ফেব্রুয়ারি

সাংবাদিকদের হুমকি দিলেন আসামিরা

বরগুনা প্রতিনিধি   

২৭ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বরগুনার আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় জামিনে থাকা আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নির জামিন বাতিলের আবেদনের অধিকতর শুনানির জন্য ২ ফেব্রুয়ারি নির্ধারণ করেছেন আদালত। গতকাল রবিবার এই মামলায় দুজন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ করেছেন আদালত। এদিকে পেশাগত দায়িত্ব পালনের সময় স্থানীয় সাংবাদিকদের দেখে নেওয়ার হুমকি দিয়েছেন রিফাত শরীফ হত্যা মামলার কয়েকজন আসামি।

গতকাল দুপুরে বরগুনার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. আছাদুজ্জামান মিয়া রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে পরবর্তী জামিন বাতিলের আবেদন শুনানি ২ ফেব্রুয়ারি নির্ধারণ করেন। মিন্নির আইনজীবী মাহবুবুল বারী আসলাম বলেন, গত ৮ জানুয়ারি মিন্নির জামিন বাতিলের জন্য আবেদন করে রাষ্ট্রপক্ষ। এরপর মিন্নির জামিন কেন বাতিল হবে না জানতে চেয়ে আসামিপক্ষকে কারণ দর্শাতে বলা হয়। গত ১৫ জানুয়ারি কারণ দর্শানোর নোটিশের লিখিত জবাব আদালতে দাখিল করা হয়।

ওই দিন মিন্নির জামিন বাতিল আবেদনের শুনানির জন্য ২৬ জানুয়ারি দিন ধার্য করেন আদালত। রবিবার মিন্নির জামিন বাতিল আবেদনের শুনানির জন্য সময় চায় রাষ্ট্রপক্ষ। পরে আগামী ২ ফেব্রুয়ারি শুনানির জন্য পরবর্তী তারিখ নির্ধারণ করেন আদালত।

এ ব্যাপারে রিফাত শরীফ হত্যা মামলার বাদীপক্ষের আইনজীবী মুজিবুল হক কিসলু বলেন, রবিবার মামলার প্রাপ্তবয়স্ক ১০ আসামির বিরুদ্ধে তিন সাক্ষীর সাক্ষ্য দেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু এক সাক্ষী সৌদি আরব থাকায় দুজনের সাক্ষ্য নিয়েছেন আদালত।

এদিকে পেশাগত দায়িত্ব পালনের সময় স্থানীয় সাংবাদিকদের হুমকি দিয়েছেন ওই মামলার আসামিরা। জেল থেকে বেরিয়ে সাংবাদিকদের দেখে নেওয়ার হুমকি দেন রাকিবুল হাসান রিফাত ফরাজী, কামরুল ইসলাম সাইমুন, আল কাইয়ুুম ওরফে রাব্বি আকনসহ কয়েকজন আসামি। এ সময় তাঁরা সাংবাদিকদের অশালীন গালমন্দ করার পাশাপাশি প্রিজন ভ্যানের ভেতর থেকে জুতা দেখান।

গত ১ সেপ্টেম্বর রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় রিফাতের স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নিসহ ২৪ জনের বিরুদ্ধে বরগুনার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে দুই ভাগে বিভক্ত অভিযোগপত্র দেয় পুলিশ। একই সঙ্গে রিফাত শরীফ হত্যা মামলার এক নম্বর আসামি নয়ন বন্ড বন্দুকযুদ্ধে নিহত হওয়ায় তাঁকে মামলা থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা