kalerkantho

মঙ্গলবার । ১১ কার্তিক ১৪২৭। ২৭ অক্টোবর ২০২০। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

ধর্ষণ করে ফেসবুকে উল্লাস

তারা বখাটে হিসেবেই পরিচিত

নিজস্ব প্রতিবেদক, গাজীপুর   

২৭ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



গাজীপুরের শ্রীপুরে স্কুলছাত্রীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ করে ফেসবুকে উল্লাস করা চার বন্ধু—শরীফ হোসেন, সুজন, শরীফ মোল্লা ও হাসান এলাকায় পরিচিত ‘বখাটে’ হিসেবে। মাদকাসক্তও।

শরীফ হোসেনের বাবা জসিম উদ্দিন ও সুজনের বাবা লিটন মিয়া সবজি বিক্রেতা। শরীফ মোল্লার বাবা সাবাজ মোল্লা দিনমজুর। হাসানের বাবা বেঁচে নেই। এলাকায় সবাই তাকে জানে টোকাই ও বখাটে হিসেবে। রবিবার শ্রীপুরের নয়নপুর এলাকায় গেলে এসব তথ্য জানায় স্থানীয় লোকজন।

স্থানীয় বাসিন্দা মুনসুর আলী জানান, চারজনের মধ্যে সুজনই লেখাপড়া করত। সে স্থানীয় একটি স্কুলে দশম শ্রেণির ছাত্র হলেও সারা দিন আড্ডাই দেয়। পাশাপাশি বাড়ি হওয়ার সুবাধে চারজনই সারা দিন মোবাইল হাতে একসঙ্গে ঘুরে বেড়ায় আর মেয়েদের পেছনে ঘুর ঘুর করে।

র‌্যাব-১-এর গাজীপুর ক্যাম্পের অধিনায়ক আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, ‘ওরা খুবই বখাটে। ধর্ষণের আগে চারজনই মাদক নিয়েছিল।’

গত ১৫ জানুয়ারি সন্ধ্যায় গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার নয়নপুর এলাকার একটি বাসায় বান্ধবীর সহায়তায় অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রীকে জন্মদিনের অনুষ্ঠানের কথা বলে ডেকে আনে অভিযুক্ত চারজন। সেখানে তারা কোমল পানীয়ের সঙ্গে ঘুমের ওষুধ মিশিয়ে ওই ছাত্রীকে পান করায়। এরপর একটি ঝোঁপে নিয়ে হাত-পা বেঁধে ধর্ষণ করে। তারা ধর্ষণের দৃশ্য ফোনে ধারণ করে ফেসবুকে আপলোড করে। এরপর একটি সেলুনে বসে ফেসবুকে লাইভে গিয়ে উল্লাসও করে তারা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা