kalerkantho

শনিবার । ২১ চৈত্র ১৪২৬। ৪ এপ্রিল ২০২০। ৯ শাবান ১৪৪১

গাড়ির ধাক্কায় মায়ের সামনে মেয়ের মৃত্যু

পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় ঝরল তিন প্রাণ

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা ও কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধি   

২৪ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



মা নাজিরা পারভিনকে (৫০) নিয়ে বড় বোনের বাসা রাজধানীর লালবাগে যাচ্ছিলেন রামপুরার একটি পোশাক কারখানার কর্মকর্তা (প্রশাসন) সাহারা তালুকদার (২৩)। এ সময় একটি কাভার্ড ভ্যান ধাক্কা দিলে মা-মেয়ে রাস্তায় ছিটকে পড়েন। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় মেয়ের। আহত মাকে পাঠানো হয় হাসপাতালে। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজধানীর টিকাটুলীর টয়েনবি সার্কুলার রোডে মর্মান্তিক এ ঘটনা ঘটে। এ ছাড়া রাজধানীতে গত বুধবার রাতে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় দুজন ও গাজীপুরের কালিয়াকৈরে গতকাল একজনের প্রাণ গেছে।

টিকাটুলীতে নিহত সাহারা তালুকদার পিরোজপুরের নেসারাবাদ উপজেলার আউরিয়া গ্রামের শাহাদাদ হোসেন তালুকদারের মেয়ে। রাজধানীর মুগদার মানিকনগরে পরিবারের সঙ্গে থাকতেন তিনি।

ওয়ারী থানার এসআই মনজুরুল হাবিব বলেন, ঘাতক কাভার্ড ভ্যানসহ চালককে আটক করা হয়েছে। ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে ময়নাতদন্ত শেষে স্বজনদের কাছে মরদেহ হস্তান্তর করা হয়েছে।’ নিহতের চাচা আব্দুর রহিম তালুকদার জানান, সাহারা তাঁর মাকে নিয়ে বোন সুমাইয়া তালুকদারের বাসা লালবাগে যাচ্ছিলেন। গত বুধবার রাতে মতিঝিলে যাত্রীবাহী বাসের ধাক্কায় এক ব্যক্তি ও মোহাম্মদপুরে একটি গাড়ির ধাক্কায় এক নারীর মৃত্যু হয়। নিহতরা হলেন মো. হিরু মিয়া (৪৭) ও রেহেনা বেগম (৪৬)। পুলিশ জানায়, হিরু ভ্যানে করে চায়ের দোকানে পানি দেওয়ার কাজ করতেন আর সোহরাওয়ার্দী ও শিশু হাসপাতালে ঝাড়ু দেওয়ার কাজ করতেন রেহেনা। রেহেনার বাড়ি নওগাঁর ধামইরহাট উপজেলার গঙ্গা এলাকায়। তিনি মোহাম্মদপুর জেনেভা ক্যাম্পে মেয়ের সঙ্গে থাকতেন। হিরু ভ্যানেই থাকতেন, ঘুমাতেন।

মতিঝিল থানার এসআই সৈয়দ আলী জানান, রাতে মতিঝিল এলাকায় ভ্যান চালিয়ে যাচ্ছিলেন হিরু মিয়া। এ সময় পানি উন্নয়ন বোর্ড ভবনের সামনে পেছন থেকে একটি যাত্রীবাহী বাস ভ্যানটিকে ধাক্কা দেয়। এতে ছিটকে পড়ে গুরুতর আহত হন হিরু। পুলিশ তাঁকে উদ্ধার করে রাত আড়াইটার দিকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল ভোরে তাঁর মৃত্যু হয়। বাসটি শনাক্ত করার চেষ্টা  চলছে।

মোহাম্মদপুর থানার এসআই লব-চৌহান বলেন, বুধবার রাত আড়াইটার দিকে হাসপাতালে কাজ শেষে বাসায় ফেরার পথে শ্যামলী শিশু মেলার সামনে রাস্তা পার হওয়ার সময় অজ্ঞাত গাড়ির ধাক্কায় রেহেনার মৃত্যু হয়। পরে লাশ শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়।

কালিয়াকৈর উপজেলার পল্লীবিদ্যুৎ এলাকায় ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে গতকাল সকালে গাড়ির চাপায় এক নারী পোশাক শ্রমিক নিহত হন। নিহত আফরিন আক্তার (২৫) স্থানীয় ব্লু ওপেন ফুটওয়্যার লিমিটেড কারখানার শ্রমিক ও গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জের শান্তিরাম গ্রামের আবুল হোসেনের মেয়ে। কালিয়াকৈরের বিশ্বাসপাড়ায় ভাড়া বাসায় থাকতেন তিনি।

সালনা (কোনাবাড়ি) হাইওয়ে থানার ওসি মজিবুর রহমান বলেন, আফরিনের লাশ তাঁর স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা