kalerkantho

বুধবার । ১৩ ফাল্গুন ১৪২৬ । ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ১ রজব জমাদিউস সানি ১৪৪১

ফেসবুকে স্ট্যাটাস

গুলিতে পুলিশ সদস্যের আত্মহত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৪ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



গুলিতে পুলিশ সদস্যের আত্মহত্যা

প্রতীকী ছবি

‘মৃত্যুর জন্য কাউকে দায়ী করব না। আমার ভেতরের যন্ত্রণাগুলো অনেক বড় হয়ে গেছে। আমি আর সহ্য করতে পারছি না। প্রাণটা পালাই পালাই করছে...। তবে সকল অবিবাহিতদের প্রতি আমার আকুল আবেদন, আপনারা পাত্রী পছন্দ করার আগে পাত্রীর ‘মা’ ভালো কি না তা সঠিকভাবে খবর নিবেন। কারণ পাত্রীর মা ভালো না হলে পাত্রী কখনোই ভালো হবে না। ফলে আপনার সংসারটা হবে দোযখের মতো। সুতরাং সকল সম্মানিত অভিভাবকগণের প্রতি আমার শেষ অনুরোধ, বিষয়টি বিশেষভাবে গুরুত্ব দিবেন।’

ফেসবুকে এমন স্ট্যাটাস লিখে ঢাকা মহানগর পুলিশের এক সদস্য বুকে গুলি চালিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। তাঁর নাম শাহ মোহাম্মদ কুদ্দুস (৩১)। গতকাল বৃহস্পতিবার ভোর ৫টার দিকে স্ট্যাটাস দেওয়ার পর মিরপুর-১৪ নম্বরে পুলিশ লাইন মাঠে নিজের ইস্যুকৃত অস্ত্র দিয়ে নিজের বুকে গুলি চালান। ঘটনাস্থলে তাঁর মৃত্যু হয়।

নায়েক পদে কর্মরত কুদ্দুস ২০১২ সালে কনস্টেবল পদে বাংলাদেশ পুলিশে যোগ দেন। থাকতেন মিরপুর পুলিশ লাইনের ব্যারাকে। তাঁর বাড়ি সিলেটের হবিগঞ্জে।

কাফরুল থানার ওসি সেলিমুজ্জামান জানান, ধারণা করা হচ্ছে কুদ্দুস নিজেই পোস্টটি দিয়ে আত্মহত্যা করেন। তাঁর গায়ে দুটি গুলির চিহ্ন পাওয়া গেছে। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

সুরতহাল প্রতিবেদন প্রস্তুতকারী কাফরুল থানার এসআই মোজাম্মেল হক বলেন, ‘ভোরে খবর পেয়ে মাঠে গিয়ে কুদ্দুসের মরদেহ পড়ে থাকতে দেখি। বুকে দুটি ছিদ্র রয়েছে।’ তিনি আরো বলেন, ‘কুদ্দুসের ডিউটি ছিল সকালে। এ জন্য তিনি একটি ফুল লোডেড এসএমজি রিকুইজিশন নিয়েছিলেন। সেটি দিয়েই গুলি চালানো হয়েছে।’ কারণ জানতে চাইলে এসআই মোজাম্মেল বলেন, ‘আমরা শুনেছি তিনি অত্যন্ত মানসিক চাপে ভুগছিলেন। তা থেকে আত্মহত্যা করতে পারেন।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা