kalerkantho

বুধবার । ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৫ নভেম্বর ২০২০। ৯ রবিউস সানি ১৪৪২

ভারতের রাষ্ট্রপতি বললেন

বাংলাদেশে আরো অগ্রগতি চায় ভারত

কূটনৈতিক প্রতিবেদক   

২২ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বাংলাদেশের সঙ্গে বিশেষ সম্পর্ক এবং এই সম্পর্ক আরো জোরদার করার ক্ষেত্রে ভারতের সর্বোচ্চ অগ্রাধিকারের কথা জানিয়েছেন সে দেশের রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। ভারতে বাংলাদেশের নতুন হাইকমিশনার মুহাম্মদ ইমরান গতকাল মঙ্গলবার নয়াদিল্লিতে রাষ্ট্রপতি ভবনে আনুষ্ঠানিকভাবে পরিচয়পত্র পেশকালে ভারতের রাষ্ট্রপতি এ অগ্রাধিকারের কথা জানান।

বাংলাদেশের নতুন হাইকমিশনারকে স্বাগত জানিয়ে ভারতের রাষ্ট্রপতি বলেন, ভারত বাংলাদেশে আরো আর্থ-সামাজিক অগ্রগতি দেখতে চায়। তিনি বলেন, বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের বিশেষ সম্পর্ক আছে। এই সম্পর্ক আরো জোরদার করাকে ভারত সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিচ্ছে।

ভারতের রাষ্ট্রপতি নিরাপত্তা, কানেকটিভিটি এবং মানুষে মানুষে যোগাযোগসহ সব ক্ষেত্রে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে জোরালো ও গভীর সম্পর্ক দেখার প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী, বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের সুবর্ণ জয়ন্তী এবং ভারতের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার ৫০ বছর উদ্‌যাপনে ভারত বাংলাদেশের অংশীদার হতে পেরে আনন্দিত।

ভারতের রাষ্ট্রপতি বাংলাদেশের সাবেক হাইকমিশনার প্রয়াত সৈয়দ মোয়াজ্জেম আলীকে স্মরণ করেন। তিনি সৈয়দ মোয়াজ্জেম আলীকে ভারতের ভালো বন্ধু এবং বাংলাদেশের প্রকৃত দেশপ্রেমিক হিসেবে উল্লেখ করেন।

ভারতের রাষ্ট্রপতি বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতিকে তাঁর শুভেচ্ছা জানান। বাংলাদেশের হাইকমিশনারও ভারতের রাষ্ট্রপতিকে বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা পৌঁছে দেন। তিনি বলেন, ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধে সর্বাত্মক সহযোগিতার জন্য ভারতের জনগণ ও সরকারের কাছে কৃতজ্ঞ বাংলাদেশ।

হাইকমিশনার বলেন, ১৯৭১ সালের রণাঙ্গনে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে যে সহযোগিতা শুরু হয়েছিল তা এখন ব্যতিক্রমী পর্যায়ে পৌঁছেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির দূরদর্শী নেতৃত্বে এই সম্পর্ককে ‘সেরা’ ও ‘সুপ্রতিবেশীসুলভ সম্পর্কের’ মডেল হিসেবে অভিহিত করা হয়।

বাংলাদেশের নতুন হাইকমিশনার ভারতের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক আরো সুসংহত ও সম্প্রসারণের ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার লক্ষ্য বাস্তবায়নে নিরলসভাবে কাজ করবেন বলে ভারতের রাষ্ট্রপতিকে আশ্বাস দিয়েছেন। তিনি উভয় দেশের জন্য লাভজনক নিরাপত্তা, পারস্পরিক আস্থা ও বিশ্বাস, কানেকটিভিটিকে উৎসাহিতকরণ এবং অর্থনৈতিক সহযোগিতায় গুরুত্ব দিয়ে আঞ্চলিক ও উপ-আঞ্চলিক সহযোগিতাকে আরো এগিয়ে নিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিরলস চেষ্টার কথা তুলে ধরেন।

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী ঘিরে ‘মুজিববর্ষ’ উদ্‌যাপন করার কথা ভারতের রাষ্ট্রপতিকে জানান হাইকমিশনার মুহাম্মদ ইমরান। তিনি বলেন, আগামী ১৭ মার্চ ঢাকায় মুজিববর্ষের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে নরেন্দ্র মোদিসহ ভারতের নেতাদের উপস্থিতি প্রত্যাশা করছে বাংলাদেশ।

পরিচয়পত্র পেশ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন হাইকমিশনার মুহাম্মদ ইমরানের স্ত্রী ড. জাকিয়া হাসনাত ইমরান এবং বাংলাদেশ মিশনের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তারা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা