kalerkantho

বৃহস্পতিবার  । ২৬ চৈত্র ১৪২৬। ৯ এপ্রিল ২০২০। ১৪ শাবান ১৪৪১

জহুরুল হক ও আব্দুল্লাহ আল মুতী শরফুদ্দীনের স্মরণসভা

সমাজকে কুসংস্কার মুক্ত করতে কাজ করেছেন তাঁরা

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

১৯ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



প্রয়াত বিজ্ঞান লেখক আ মু জহুরুল হক ও আব্দুল্লাহ আল মুতী শরফুদ্দীন ছিলেন অসাধারণ কর্মবীর। সমাজকে বিজ্ঞানমনস্ক ও কুসংস্কারমুক্ত করতে সহজ ভাষায় লিখে গেছেন আজীবন। বিজ্ঞানবিষয়ক কোনো কল্পকাহিনি নয়, বিজ্ঞানকে সহজভাবে মানুষের কাছে তুলে ধরেছেন তাঁরা। এ দুই গুণীর স্মরণে আয়োজিত এক সভায় বক্তারা এসব কথা বলেন।

গতকাল শনিবার বিকেলে বাংলা একাডেমির কবি শামসুর রাহমান মিলনায়তনে ‘প্রয়াত বিজ্ঞান লেখক অধ্যাপক আ মু জহুরুল হক ও আবদুল্লাহ আল মুতী শরফুদ্দীন স্মরণে বাংলা একাডেমির সহযোগিতায় বিজ্ঞান সংস্কৃতি পরিষদ এ সভার আয়োজন করে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের অধ্যাপক আবুল কাশেম ফজলুল হকের সভাপতিত্বে সভায় বিজ্ঞান লেখক অধ্যাপক আলী আসগর, বিজ্ঞান লেখক সুব্রত বড়ুয়া, শিক্ষাবিদ অধ্যাপক এ এন রাশেদা প্রমুখ বক্তব্য দেন।

অধ্যাপক আবুল কাশেম ফজলুল হক বলেন, বিজ্ঞান লেখক আ মু জহুরুল হক ও আব্দুল্লাহ আল মুতী স্মরণীয় ব্যক্তি। তাঁরা দুজনই বাঙালি জাতীয়তাবাদী চেতনার দ্বারা অনুপ্রাণিত ছিলেন। বাঙালি ইতিহাস ও ঐতিহ্য নিয়ে চিন্তা করেছেন। জাতির মধ্যে বিজ্ঞানসমৃদ্ধ জীবন জগৎ সৃষ্টি এবং বিজ্ঞানের মৌলিক বিষয়ে সাধারণ শিক্ষিত লোকদের জানানোর উদ্দেশ্যে লিখেছেন তাঁরা।

অধ্যাপক আলী আসগর বলেন, এই দুজন মহান ব্যক্তি সম্পর্কে জানতে হলে, তাঁদের বার্তা পেতে হলে তাঁদের জীবন সম্পর্কে জানতে হবে। তাঁদের লেখা ও কাজের মাধ্যমেই তাঁদের জানা সম্ভব।

অধ্যাপক সুব্রত বড়ুয়া বলেন, এ দুজন ব্যক্তি বিজ্ঞানবিষয়ক কোনো কল্পকাহিনি নয় বিজ্ঞানকে সহজভাবে মানুষের কাছে তুলে ধরেছেন। তিনি মনে করেন, সমাজে বিজ্ঞান চর্চা শ্লথ হয়ে গেছে। এ জন্য জহুরুল হক ও আবদুল্লাহ আল মুতীর লেখাগুলো প্রকাশ করা উচিত।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা