kalerkantho

রবিবার  । ১৫ চৈত্র ১৪২৬। ২৯ মার্চ ২০২০। ৩ শাবান ১৪৪১

নুজহাতের আলোকচিত্র প্রদর্শনী শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৮ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নুজহাতের আলোকচিত্র প্রদর্শনী শুরু

শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় চিত্রশালায় গতকাল নুজহাত পূর্ণতার একক আলোকচিত্র প্রদর্শনী উদ্বোধন করেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য তোফায়েল আহমেদ। ছবি : কালের কণ্ঠ

তরুণ আলোকচিত্র শিল্পী নুজহাত পূর্ণতা। দেশের বাইরে পড়াশোনা করেন। কিন্তু তাঁর অন্তর জুড়ে থাকে বাংলাদেশ, থাকে ঘরহীন মানুষের দুঃখ-কষ্ট ও দেশহীন মানুষের আর্তনাদ। রোহিঙ্গা শরণার্থী থেকে শুরু করে যুক্তরাষ্ট্র, পর্তুগাল, ফ্রান্স, মেক্সিকো ও বাহামা দ্বীপপুঞ্জের মানুষের যাপিত জীবনকে ক্যামেরায় ধারণ করেছেন। আলোকচিত্রের মধ্য দিয়ে তুলে ধরেছেন মানুষের জীবনের গল্প। গতকাল শুক্রবার শিল্পকলা একাডেমিতে জমকালো এক আয়োজনে শুরু হয়েছে তাঁর প্রথম একক আলোকচিত্র প্রদর্শনী।

নুজহাতের আলোকচিত্র প্রদর্শনীর শিরোনাম ‘ইন বিটুইন বর্ডারস অ্যান্ড আদার পলিটিক্যাল কন্ট্রাক্টস’। শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় চিত্রশালার ছয় নম্বর গ্যালারিতে গতকাল এর উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথি আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য তোফায়েল আহমেদ। এ সময় সম্মানিত অতিথি হিসেবে আরো উপস্থিত ছিলেন কালের কণ্ঠ সম্পাদক জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক ইমদাদুল হক মিলন ও বিজিএমইএ সভাপতি রুবানা হক। আরো উপস্থিত ছিলেন আলোকচিত্রী নুজহাত পূর্ণতার বাবা বাংলাদেশ প্রতিদিন সম্পাদক এবং নিউজটোয়েন্টিফোর ও রেডিও ক্যাপিটালের প্রধান নির্বাহী নঈম নিজাম এবং মা জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, ‘নুজহাত পূর্ণতার আলোকচিত্র প্রদর্শনী দেখে আমি অভিভূত ও আনন্দিত। প্রদর্শনীর আলোকচিত্রগুলো আমার হৃদয় স্পর্শ করেছে। আমি ওর জন্য দোয়া করি। যেন ও আরো বড় হয়।’

ইমদাদুল হক মিলন বলেন, ‘পূর্ণতার শিল্পপ্রেমী দৃষ্টিভঙ্গি খুব ভালো লেগেছে। ভবিষ্যতে সে আরো অনেক কাজ করবে। দেশের মুখ উজ্জ্বল করবে।’

রুবানা হক বলেন, ‘পূর্ণতাকে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা। এ প্রদর্শনীর মধ্য দিয়ে ও পূর্ণ হয়েছে।’

দুটি ভাগে উপস্থাপন করেছেন নুজহাত তাঁর আলোকচিত্র প্রদর্শনী। ‘নেমলেস ফেসেস অ্যাট বালুখালী ক্যাম্প’ শিরোনামের বিভাগটি নুজহাত সাজিয়েছেন কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আশ্রিত মানুষের ছবি দিয়ে। ‘ফ্রম অ্যারাউন্ড দি ওয়ার্ল্ড’ বিভাগে যুক্তরাষ্ট্র, পর্তুগাল, ফ্রান্স, মেক্সিকো ও বাহামা দ্বীপপুঞ্জের মানুষের যাপিত জীবনকে ধারণ করেছেন তিনি।

নুজহাত পূর্ণতা বলেন, ‘ছবিগুলোর মধ্য দিয়ে আমি মূলত জীবনের গল্প তুলে ধরতে চেয়েছি।’ আজ শনিবার দুই দিনব্যাপী এ প্রদর্শনীর শেষ দিন। চলবে সকাল ১১টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা