kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ ফাল্গুন ১৪২৬ । ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২ রজব জমাদিউস সানি ১৪৪১

আওয়ামী লীগ নেতা পদ্মার বুকে রাস্তা করছেন

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী   

১৮ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আওয়ামী লীগ নেতা পদ্মার বুকে রাস্তা করছেন

জেলা প্রশাসন চিঠি দিয়ে পদ্মার বুকে রাস্তা নির্মাণ বন্ধের নির্দেশ দিয়েছিল। গত ২৪ ডিসেম্বর সেই নির্দেশনা অনুযায়ী পদ্মার বুকে ফেলা ভরাট কিছুটা অপসারণ করেছিলেন। কিন্তু আবারও পদ্মার বুকে রাস্তা নির্মাণ করছেন মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আজিজুল আলম বেন্টু।

তিন দিন ধরে রাত-দিন চলছে রাস্তার কাজ। এতে করে পদ্মা নদীর পানি প্রবাহ বন্ধ হয়ে গেছে। ট্রাক চলাচলের রাস্তা করতে ইতিমধ্যে নদীর দুই তীর থেকে প্রায় ২০০ গজ ভরাট করে ফেলা হয়েছে।

রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আজিজুল আলম বেন্টু তাঁর মেসার্স আমিন ট্রেডার্সের নামে পবা উপজেলার চরশ্যামপুর ও চরখিদিরপুর মৌজার একটি বালুমহাল ইজারা নেন। তবে ইজারাবহির্ভূত এলাকা থেকে বালু তোলার কারণে হাইকোর্টের নির্দেশে জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত গত ২৪ জুলাই বালুঘাটটি বন্ধ করে দেন। এরই মধ্যে পদ্মায় পানি চলে আসে।

অভিযানের পর কিছুদিন বালু তোলা বন্ধ থাকে। এরপর আবার বালু তোলা শুরু করেন বেন্টু। পদ্মায় পানি থাকায় এত দিন ড্রেজারে করে বালু তোলা হচ্ছিল। এরই মধ্যে নদীর পানিও কমে গেছে। মাঝে চর পড়ে দুই ভাগে বিভক্ত হয়েছে পদ্মা। এখন সেই চরেই বালুর ট্রাক পাঠাতে নদীর এপারের অংশ ভরাট করে রাস্তা তৈরি করা হচ্ছে। নদীর দুই তীর থেকে এরই মধ্যে প্রায় ২০০ গজ ভরাট করা হয়েছে।

রাজশাহীর নদী ও পরিবেশ বাঁচাও আন্দোলনের আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট এনামুল হক বলেন, ‘এ বছর নদী ভরাট করে রাস্তা তৈরি করা হলে সেটা আগামী ভরা মৌসুমে পানির স্বাভাবিক প্রবাহ বাধাগ্রস্ত করবে।’ রাজশাহী পরিবেশ আন্দোলন ঐক্যের সদস্য ডা. মাহফুজুর রহমান বলেন, ‘নদী এভাবে ভরাট করে ফেলা খুবই দুঃখজনক। আমরা এর প্রতিবাদে আন্দোলন করেছি। কিছুদিন কাজ বন্ধ ছিল। এখন আবার নদী ভরাট করে রাস্তা করা হচ্ছে।’

জেলা প্রশাসক হামিদুল হক জানান, আবারও নদী ভরাট করে রাস্তা নির্মাণ করা হলে ইজারাদারের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ নিয়ে কথা বলতে একাধিকবার আওয়ামী লীগ নেতা বেন্টুর মোবাইলে ফোন করা হলেও তিনি রিসিভ করেননি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা