kalerkantho

শনিবার । ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৬ জুন ২০২০। ১৩ শাওয়াল ১৪৪১

পৃথিবীসদৃশ বসবাসযোগ্য গ্রহের সন্ধান

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৮ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নাসার গ্রহসন্ধানী কৃত্রিম উপগ্রহ টেস (টিইএসএস) পৃথিবীসদৃশ এক গ্রহের অবস্থান চিহ্নিত করেছে। পৃথিবী আকারের গ্রহটি প্রাণ টিকে থাকার মতো অনুকূল দূরত্বে থেকে তার সূর্যকে (টিওআই ৭০০) প্রদক্ষিণ করছে বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা। পৃথিবী থেকে প্রায় ১০০ আলোকবর্ষ দূরের ‘প্লানেট ৭০০ ডি’ নামের ওই গ্রহ তার সূর্যকে ৩৭ দিনে একবার প্রদক্ষিণ করে।

ধারণা করা হচ্ছে, গ্রহটি পৃথিবীর মতো শিলাময় এবং এতে তরল পানি রয়েছে। গ্রহটির আকার পৃথিবীর চেয়ে ২০ শতাংশ বেশি, তবে তার সূর্যের আকার আমাদের সূর্যের অর্ধেকের চেয়ে কম, মাত্র ৪০ শতাংশ। তবে সূর্য থেকে পৃথিবী যে পরিমাণ শক্তি পায় ৭০০ ডি তার তুলনায় ৮৬ শতাংশ শক্তি পেয়ে থাকে।

হাওয়াইয়ের হনুলুলুতে গত সোমবার অনুষ্ঠিত আমেরিকান অ্যাস্ট্রোনমিক্যাল সোসাইটির বার্ষিক সভায় নাসার জেট প্রপালসন ল্যাবরেটরির পক্ষ থেকে এ তথ্য প্রকাশ করা হয়। স্পিৎসার (Spitzer) স্পেস টেলিস্কোপ কর্তৃপক্ষ নাসার এই আবিষ্কারকে স্বীকৃতি দিয়েছে।

গ্রহটি তার সূর্যের সঙ্গে টাইডালি লকড অবস্থায় আছে। টাইডালি লকড বলতে কোনো গ্রহ বা উপগ্রহের এমন অবস্থা বোঝায় যা আবর্তনকালে তার শুধুমাত্র একটি দিক সঙ্গী গ্রহ বা নক্ষত্রের দিকে মুখ করে থাকে। যেভাবে একমাত্র উপগ্রহ চাঁদ আমাদের পৃথিবীর দিকে মুখ করে প্রদক্ষিণ করছে। এ ক্ষেত্রে সন্তরণশীল গ্রহ বা উপগ্রহটি তার নিজ অক্ষের ওপর একবার পাক খেতে যে সময় নেয় ঠিক একই সময় নেয় তার সঙ্গী নক্ষত্র বা গ্রহটিকে আবর্তন করতে। 

নাসার জ্যোতিপদার্থ বিভাগের পরিচালক পল হার্টজ জানান, টেসের নকশা প্রণয়ন ও উৎক্ষেপণ করা হয়েছিল বিশেষত পৃথিবীর কাছাকাছি নক্ষত্রগুলোকে প্রদক্ষিণরত পৃথিবী আকারের গ্রহ খুঁজে বের করার জন্য।

এর আগে কেপলার স্পেস টেলিস্কোপ পৃথিবীসদৃশ ও সমান আকারের বেশ কিছু গ্রহ খুঁজে পেয়েছে। তবে প্লানেট ৭০০ ডি আবিষ্কারের মাধ্যমে ২০১৮ সালে উৎক্ষেপণ করা টেস এই প্রথম এ রকম সাফল্য দেখাল। সূত্র : স্পেস ডটকম।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা