kalerkantho

শনিবার । ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৬ জুন ২০২০। ১৩ শাওয়াল ১৪৪১

চুনারুঘাট থানার ওসি-এসআইয়ের নামে ফের মামলা

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি   

৮ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



হবিগঞ্জের চুনারুঘাট থানার ওসি শেখ নাজমুল হক, এসআই বাতেনসহ ১০ জনকে আসামি করে মামলা করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার হবিগঞ্জের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সুলতান আলম প্রধানের আদালতে মামলাটি করেন দুলাল আহমেদ দুলন নামের এক ব্যবসায়ী। এর আগেও ওই ব্যবসায়ীর স্ত্রী নবিউন নাহার ওসির বিরুদ্ধে পুলিশ হেফাজতে নিয়ে তাঁর স্বামীকে নির্যাতনের অভিযোগে মামলা করেছিলেন।

পুলিশের বিরুদ্ধে স্ত্রীর করা মামলা প্রত্যাহারের জন্য প্রাণনাশের হুমকি এবং ওসির নির্দেশে এসআই বাতেনের নেতৃত্বে তাঁর ওপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় গতকাল দুপুরে তিনি নতুন মামলাটি করেন। আদালত মামলাটি গ্রহণ করলেও আজ বুধবার আদেশ দেওয়ার কথা রয়েছে।

আদালত সূত্রে জানা যায়, গত ২০ অক্টোবর নবিউন নাহার তাঁর স্বামী দুলাল আহমেদ দুলনকে পুলিশি হেফাজতে নির্যাতনের অভিযোগে ওসি শেখ নাজমুল হকসহ চার পুলিশ সদস্যের নামে জেলা ও দায়রা জজ আদালতে মামলা করেন। গত ১৯ অক্টোবর রাতে ওসি নাজমুল হকের নেতৃত্বে একদল পুলিশ দুলনকে বাড়ি থেকে আটক করে। এরপর তাঁকে থানায় নিয়ে নির্মমভাবে নির্যাতন করে পুলিশ। একপর্যায়ে আহত অবস্থায় তাকে চুনারুঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

নবিউন নাহার এ ব্যাপারে মামলা করলে বিজ্ঞ বিচারক মামলাটি তদন্তের জন্য পিবিআইকে নির্দেশ দেন। মামলার তদন্তকাজ চলমান রয়েছে।

এদিকে কারাগার থেকে জামিনে মুক্ত হওয়ার পর বর্তমানে মামলা চলমান থাকা অবস্থায় ওসি শেখ নাজমুল হক মামলাটি আপস করার জন্য দোলন ও তাঁর স্ত্রী নবিউন নাহারকে হুমকি দিয়ে আসছেন। এরই পরিপ্রেক্ষিতে দুলন নতুন মামলাটি করেন।

দুলনের আইনজীবী আজিজুর রহমান খান সজল জানান, ওসির নামে আগের মামলাটি প্রত্যাহারের জন্য দুলন ও তাঁর স্ত্রীকে ওসি এবং তাঁর লোকজন হুমকি দিয়ে আসছেন। মামলা তুলে না নিলে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে দুলনের শরীরের হাড়-মাংস এক করে দেবেন কিংবা খুন করে লাশ গুম করে ফেলবেন বলে ফোনে হুমকি দেন।

এ ব্যাপারে দুলাল আহমেদ দুলন বলেন, ‘ব্যবসায়ী নেতা হিসেবে আমি চোরাচালানের বিরুদ্ধে অবস্থান নেওয়ায় এখন আমার জীবন ঝুঁকির মধ্যে পড়েছে।’ চুনারুঘাট থানার ওসি শেখ নাজমুল হকের সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা