kalerkantho

বুধবার । ২০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৩ জুন ২০২০। ১০ শাওয়াল ১৪৪১

ধর্ষণের জরিমানা ভাগাভাগি করলেন দুই জনপ্রতিনিধি

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি   

৮ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শ্রীনগরে দুই ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে ধর্ষণের ঘটনায় সালিস করে জরিমানার টাকা ভাগ করে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। গত সোমবার সন্ধ্যায় উপজেলার উমপাড়া এলাকায় জরিমানার এই টাকা ভাগ-বাটোয়ারার ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানায়, গত শনিবার গভীর রাতে ওই এলাকায় আক্তারের রাইসমিলের তিন শ্রমিক মিনার, মুকুল ও মমিনুল এক নারীকে ধর্ষণ করে। ধর্ষিতা ওই নারীর চিৎকারে এক পথচারী ঘটনাস্থলে গিয়ে তাঁকে উদ্ধার করেন। এ সময় ষোলঘর ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য ফিরোজা বেগম ওই নারীকে জিম্মায় নেন। পরে আরেক ইউপি সদস্য লিপটন তাৎক্ষণিক সালিস বসান। সালিসে তিন ধর্ষককে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করে ধর্ষিতাকে এলাকা ছেড়ে যেতে বলা হয়। গত সোমবার সন্ধ্যায় তিন ধর্ষক জরিমানার টাকা দুই সদস্যের হাতে তুলে দিলে তাঁরা তা ভাগ করে নেন।

এ ব্যাপারে ইউপি সদস্য লিপটন বলেন, জরিমানার টাকা মহিলা ইউপি সদস্যের কাছে রয়েছে। ইউপি সদস্য ফিরোজা বেগম বলেন, ‘আমার ওয়ার্ড এখানে, আমি কী করব কি করব না, তা কাউকে বলতে বাধ্য নই।’

ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আজিজুল ইসলাম বলেন, বিষয়টি কেউ তাঁকে জানায়নি। তবে ধর্ষণের ঘটনা সালিস অযোগ্য অপরাধ।

শ্রীনগর থানার ওসি মো. হেদায়াতুল ইসলাম ভূঞা বলেন, এ বিষয়ে কোনো অভিযোগ পাইনি। তবে খোঁজ নিয়ে ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেলে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা