kalerkantho

রবিবার । ২২ চৈত্র ১৪২৬। ৫ এপ্রিল ২০২০। ১০ শাবান ১৪৪১

বিশ্বব্যাংকের অনুষ্ঠানে অভিমত

দেশে খাদ্য ঘাটতি না থাকলেও পুষ্টিকর খাদ্য বড় চ্যালেঞ্জ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১২ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দেশে খাদ্য ঘাটতি না থাকলেও পুষ্টিকর ও নিরাপদ খাদ্য এখনো বড় চ্যালেঞ্জ। পুষ্টিকর খাদ্য কেনার ক্ষেত্রে খরচ বড় ধরনের বাধা হয়ে আছে। এ ছাড়া দেশের জনস্বাস্থ্য, কৃষি ও প্রাণিসম্পদের ওপর জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষতিকর প্রভাব রয়েছে। ফলে সামনের দিনগুলোতে পরিস্থিতি আরো খারাপ হওয়ার ঝুঁকি রয়েছে। তাই এখন থেকেই জনস্বাস্থ্য, কৃষি ও প্রাণিসম্পদের সুরক্ষায় কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে।

গতকাল বুধবার রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশনের কনভেনশন হলে আয়োজিত ‘ক্লাইমেট স্মার্ট ইনভেস্টমেন্ট প্ল্যান এবং লাইভস্টক অ্যান্ড ডেইরি ডেভেলপমেন্ট প্রজেক্টর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এ তথ্য ও অভিমত উঠে আসে। বিশ্বব্যাংকের আয়োজনে এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, ‘পুষ্টির অন্যতম প্রধান উৎস হলো মাছ, মাংস, দুধ ও ডিম। কিন্তু আমাদের দেশে মাথাপিছু যে আয়, তা দিয়ে সবার পক্ষে এসব পুষ্টিকর খাবার গ্রহণ করা সম্ভব নয়। আর তাই মাথাপিছু আয় বাড়াতে কৃষিকে আধুনিক কৃষিতে নিয়ে যেতে হবে এবং প্রক্রিয়াজাত করে রপ্তানি করতে হবে। একই সঙ্গে শিল্পপ্রতিষ্ঠান স্থাপনের মাধ্যমে কর্মসংস্থান নিশ্চিত করতে হবে এবং এ খাতে উদ্যোক্তা সৃষ্টি করতে হবে।’

কৃষিমন্ত্রী বলেন,  ‘বিগত দশকে পোল্ট্রি ও ডেইরি খাতে অভাবনীয় সাফল্য এসেছে। দুধ, মাছ, মাংস ও ডিমের উৎপাদনও বেড়েছে। জলবায়ুর ক্রমাগত পরিবর্তনের লাগামকে টেনে ধরতে না পারলে কৃষির উৎপাদন মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা