kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৮ জানুয়ারি ২০২০। ১৪ মাঘ ১৪২৬। ২ জমাদিউস সানি ১৪৪১     

নিপীড়নের তথ্য নাকচ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

ধর্মনিরপেক্ষতা থেকে পিছু হটলে ভারতের অবস্থান দুর্বল হবে

কূটনৈতিক প্রতিবেদক   

১২ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ধর্মনিরপেক্ষতা থেকে পিছু হটলে ভারতের অবস্থান দুর্বল হবে

ধর্মনিরপেক্ষতার নীতি থেকে পিছু হটলে ভারতের ঐতিহাসিক অবস্থান দুর্বল হবে বলে মন্তব্য করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। ভারতের নাগরিকত্ব আইন নিয়ে বাংলাদেশের অবস্থান সম্পর্কিত এক প্রশ্নের জবাবে গতকাল বুধবার তিনি এ কথা বলেন। এ সময় তিনি বাংলাদেশে ধর্মীয় নিপীড়নের অভিযোগ নাকচ করেন। মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের জনগণের প্রত্যাশা ও বিশ্বাস যে ভারত এমন কিছু করবে না যাতে বিদ্যমান চমৎকার দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কে আতঙ্ক বা উদ্বেগ তৈরি হয়।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাংবাদিকদের জানান, বাংলাদেশে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত আর্ল রবার্ট মিলার গতকাল দুপুরে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎকালে ভারতে নতুন নাগরিকত্ব আইন নিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী তাঁর উদ্বেগের কথা জানান।

বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তানের নিপীড়িত সংখ্যালঘুদের নাগরিকত্ব দেওয়ার বিধান রেখে ভারত নাগরিকত্ব আইন প্রণয়ন করছে। সাংবাদিকরা এই আইন নিয়ে বাংলাদেশের অবস্থান জানতে চাইলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘ভারত ঐতিহাসিকভাবে একটি সহনশীল দেশ, যারা ধর্মনিরপেক্ষতায় বিশ্বাস করে। সেখান থেকে পদস্খলন হলে ভারতের যে ঐতিহাসিক অবস্থান সেটা দুর্বল হবে বলে আমি মনে করি।’

বাংলাদেশে ধর্মীয় নিপীড়নের অভিযোগ প্রসঙ্গে ড. মোমেন বলেন, ‘এ ব্যাপারে যে কথাগুলো উঠেছে সেগুলোর অনেকটাই সত্য নয়। আমাদের দেশে ধর্মীয় সম্প্রীতি অত্যন্ত বেশি। সম্প্রতি অনেক লোক বাংলাদেশে ফিরছে। এখানে সব ধর্মের প্রতি শ্রদ্ধাবোধ আছে। আমাদের সরকারে অনেক বড় সিদ্ধান্ত যাঁরা নেন তাঁরা অন্য ধর্মের লোক। আমরা তাঁদের (ইসলাম ছাড়া অন্য ধর্মের অনুসারী) সমানভাবে একই দৃষ্টিতে দেখি, বাংলাদেশের নাগরিক হিসেবে। সুতরাং তারা (ভারত) বাংলাদেশে নির্যাতিত হওয়ার যে তথ্য দিয়েছে তা সত্য নয়। এখানে অন্য ধর্মাবলম্বীরা বিবৃতি দিতে পারে যে তাদের ওই বক্তব্য ঠিক নয়।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা