kalerkantho

সোমবার । ২০ জানুয়ারি ২০২০। ৬ মাঘ ১৪২৬। ২৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

এবার আন্দোলনে যাচ্ছে তিন চাকার গাড়িচালকরা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১১ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮-তে নির্ধারিত জেল-জরিমানা এক বছরের জন্য শিথিল করাসহ ১০ দাবিতে আন্দোলনের প্রস্তুতি নিচ্ছে তিন চাকার গাড়িচালকরা। দাবি পূরণে ঢাকা অটোরিকশা শ্রমিক ইউনিয়ন ও বাংলাদেশ অটোরিকশা শ্রমিক লীগ আজ বুধবার প্রধানমন্ত্রীকে স্মারকলিপি দেবে। সকাল ১১টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন শেষে তারা মিছিল নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে গিয়ে স্মারকলিপি দেবে। দাবি বাস্তবায়িত না হলে তারা আন্দোলনে যাবে।

সংগঠন দুটির প্রথম দাবি নতুন সড়ক আইনে বিভিন্ন ধারার জরিমানা ও শাস্তি কমানো। তারা আইনের সাতটি ধারা সংশোধনের দাবি করছে। দ্বিতীয়ত, থ্রি-হুইলারচালকদের ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রদানে শিক্ষাগত যোগ্যতা শিথিল করা এবং লার্নার/শিক্ষানবিশ লাইসেন্স দিয়ে অন্তত ছয় মাস গাড়ি চালানোর অনুমতি দিতে হবে। পেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্স নবায়নের ক্ষেত্রে পুনঃপরীক্ষা বাতিল করতে হবে।

তৃতীয় দাবি হলো, সব জাতীয় মহাসড়কের পাশে সার্ভিস লেন চালু করে তিন চাকার যানবাহন চলাচলের ব্যবস্থা করতে হবে এবং এর আগ পর্যন্ত আঞ্চলিক মহাসড়কে দিনে চলাচলের অনুমতি দিতে হবে। একই সঙ্গে থ্রি-হুইলার রেজিস্ট্রেশনের সিলিং নির্ধারণ করে দ্রুত রেজিস্ট্রেশন চালু করতে হবে। চতুর্থত, রাইড শেয়ারিং কম্পানির কার্যক্রম বন্ধ ও যানবাহনের সিলিং নির্ধারণ করা এবং রাইড শেয়ারিং চালকদের ড্রেস কোডের আওতায় আনা। অপেশাদার লাইসেন্সে রাইড শেয়ারিং যানবাহন চালানো বন্ধ ও রাইড শেয়ারিং কম্পানির যানবাহনে শনাক্তকরণ চিহ্ন বাধ্যতামূলক করা।

দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে—মহানগরীর গুরুত্বপূর্ণ স্থানে সিএনজিচালিত অটোরিকশার স্ট্যান্ড/পার্কিং নির্ধারণ করা এবং তা বাস্তবায়নের আগ পর্যন্ত নো-পার্কিং মামলা না করা; গ্যাসের বর্ধিত মূল্য সমন্বয় করে অটোরিকশার ভাড়া পুনর্নির্ধারণ করা; সব যানবাহনের মেয়াদ নির্ধারণ করে দ্রুত ফিটনেসহীন যানবাহন স্ক্র্যাপ করা; চালকদের ট্রেনিংয়ের জন্য ঢাকা ও চট্টগ্রাম মহানগরীসহ বিভিন্ন জেলায় ট্রেনিং সেন্টার খোলা; ঢাকা মহানগীতে বসবাসকারী বৈধ লাইসেন্সধারী থ্রি-হুইলারচালকদের মধ্যে পাঁচ হাজার অটোরিকশা বিলি-বণ্টনের ব্যবস্থা করা এবং ঢাকাসহ আশপাশের জেলার অটোরিকশা ঢাকা মহানগরীতে চলাচল নিষিদ্ধ করা।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা