kalerkantho

সোমবার। ২৭ জানুয়ারি ২০২০। ১৩ মাঘ ১৪২৬। ৩০ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

নতুনের নাট্য উৎসবে সম্মানিত চার গুণী

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৬ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



নতুনের নাট্য উৎসবে সম্মানিত চার গুণী

শিল্পকলা একাডেমিতে ‘নতুনের উৎসব’ শিরোনামে সাত দিনব্যাপী নাট্যোৎসবের সমাপনী অনুষ্ঠানে গতকাল শিল্পীদের নৃত্য পরিবেশনা। ছবি : কালের কণ্ঠ

মঞ্চে তাঁদের অবদান অসামান্য। মঞ্চনাটক তথা বাংলা নাটক ও যাত্রাপালায় তাঁরা তাঁদের কর্মের মধ্য দিয়ে জাগরণ তুলেছিলেন। প্রজন্মের পর প্রজন্মকে অনুপ্রাণিত করেন মঞ্চের এই চার গুণী শিল্পী ফেরদৌসী মজুমদার, জ্যোত্স্না বিশ্বাস, লাকী ইনাম ও শিমূল ইউসুফ। মঞ্চে তাঁদের সার্বিক অবদানের জন্য সম্মাননা প্রদান করা হয়েছে। নতুনের উৎসবের শেষ দিনে তাঁদের এ সম্মাননা জানানো হয়।

গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় শিল্পকলা একাডেমির নাট্যশালার প্রধান মিলনায়তনে নাগরিক নাট্য সম্প্রদায় আয়োজিত ‘নতুনের উৎসব ২০১৯’ নাট্যোৎসবের সমাপনী দিনে এই পুরস্কার প্রদান করা হয়। গুণী চারজন ছাড়াও এই আয়োজনে নাট্যজন আবুল হায়াতের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে কথা বলেন নাট্যজন তারিক আনাম ও প্রফেসর আবদুস সেলিম।

পুরস্কার প্রাপ্তির অনুভূতি প্রকাশে ফেরদৌসী মজুমদার বলেন, ‘আমার দুই রকম অনুভূতি হচ্ছে। একটি সুখের, একটি দুঃখের। সুখের অনুভূতি হচ্ছে—পুরস্কার পেলে সবার ভালো লাগে, আমারও লাগছে। আর দুঃখের অনুভূতি হচ্ছে—আমার সহযোদ্ধা আলী যাকেরকে আমি দেখতে পাচ্ছি না। আমি তাঁর রোগমুক্তি কামনা করি, আশা করি তিনি আমাদের মাঝে মঞ্চে ফিরে আসবেন।’

লাকী ইনাম বলেন, ‘আমার শেখা, পথচলা এই নাগরিকেই। তারা এই উৎসবের মধ্য দিয়ে নতুন নাটককে যেভাবে প্রণোদনা দিয়েছে, সেটা মাইলস্টোন তৈরি করেছে। এটা থিয়েটার অঙ্গনকে আরো ঋদ্ধ করবে।’

শিমূল ইউসুফ বলেন, ‘আমাকে গানের ভুবন থেকে নাটকের ভুবনে এনেছেন ফেরদৌসী মজুমদার ও সারা যাকের। সেই যে নাটকের দরজাটি দিয়ে ঢুকেছি আর বেরোতে পারিনি। ভালোবাসা এতই প্রবল।’  

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ মহিলা সমিতির বয়োবৃদ্ধ পরিচ্ছন্নতাকর্মী শেখ শামউদ্দিন সাজাহান এবং ক্যান্সার আক্রান্ত আবৃত্তিশিল্পী ফখরুল ইসলামকে আর্থিক সহায়তা হিসেবে প্রত্যেককে এক লাখ টাকা প্রদানের ঘোষণা দেওয়া হয়। সমাপনী অনুষ্ঠান শেষে ‘লটারি’ নাটকটি মঞ্চস্থ হওয়ার মাধ্যমে বাংলাদেশের মঞ্চনাটক চর্চায় নবতর সংযোজন ‘নতুনের উৎসব ২০১৯’-এর পর্দা নামে।

রুশ বিজ্ঞান ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে শুরু হলো মুক্তিযুদ্ধ উৎসব : রাজধানীর রুশ বিজ্ঞান ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্র এবং মুক্তিযুদ্ধ একাডেমি ট্রাস্টের যৌথ আয়োজনে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে শুরু হলো মুক্তিযুদ্ধ উৎসব। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে ধানমণ্ডিতে অবস্থিত রুশ বিজ্ঞান ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে এ উৎসবের উদ্বোধন করা হয়। সকালে প্রধান অতিথি হিসেবে উৎসব উদ্বোধন করেন ঢাকাস্থ রুশ বিজ্ঞান ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের পরিচালক ম্যাক্সিম দোব্রখোত্ভ। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন মুক্তিযুদ্ধ একাডেমি ট্রাস্টের চেয়ারম্যান ড. আবুল কালাম আজাদ।

সকালে একটি বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রার মধ্য দিয়ে শুরু হয় উৎসবের আনুষ্ঠানিকতা। শোভাযাত্রা শেষে রুশ বিজ্ঞান ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্র গ্যালারিতে উদ্বোধন করা হয় মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক এবং বাংলাদেশ ও রাশিয়ার মধ্যকার বিভিন্ন সময়ের ঐতিহাসিক ছবির প্রদর্শনী।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা