kalerkantho

রবিবার । ১৯ জানুয়ারি ২০২০। ৫ মাঘ ১৪২৬। ২২ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

পরের শুনানি পর্যন্ত শান্তিপূর্ণ কর্মসূচির সিদ্ধান্ত বিএনপির

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৬ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে ১২ ডিসেম্বরের আগ পর্যন্ত বিক্ষোভসহ শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিএনপি। গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে রাজধানীর গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের স্থায়ী কমিটির বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়।

বৈঠকে খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবিতে আগামী রবিবার ঢাকাসহ দেশব্যাপী বিক্ষোভ কর্মসূচি পালনের সিদ্ধান্ত হয়। আজকালের মধ্যে সংবাদ সম্মেলন করে এ কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে। খালেদা জিয়ার জামিনের শুনানির আদেশ পেছানোর বিষয়টিসহ সার্বিক পরিস্থিতি পর্যালোচনা করতে জরুরি এ বৈঠকে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান লন্ডন থেকে স্কাইপে যুক্ত ছিলেন।

স্থায়ী কমিটির দুই নেতা নাম প্রকাশ না করে কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘বৈঠকে সার্বিক দিক পর্যালোচনা করে সবাই একমত হয়েছেন, সরকারের সর্বোচ্চ মহলের বাধাই খালেদা জিয়ার মুক্তির প্রধান অন্তরায়। তার পরও কঠোর কোনো সিদ্ধান্তে না গিয়ে খালেদা জিয়ার জামিন শুনানির সর্বশেষ দিন পর্যন্ত অপেক্ষায় থাকবে বিএনপি।’

বৈঠকে অংশ নেওয়া  স্থায়ী কমিটির আরেক সদস্য বলেন, ‘১২ ডিসেম্বর ধার্য তারিখে খালেদা জিয়ার জামিন না হলে বিএনপি বাধ্য হয়ে এক দফা আন্দোলনে যাবে। আশা করি, সরকারপ্রধানও তা বুঝতে পারছেন।’

স্থায়ী কমিটির বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার  মোশাররফ  হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আবদুল মঈন খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, বেগম সেলিমা রহমান প্রমুখ। পরে বিএনপিপন্থী জ্যেষ্ঠ আইনজীবীদের সঙ্গে বৈঠক করেন স্থায়ী কমিটির সদস্যরা। আইনজীবীদের মধ্যে খন্দকার মাহবুব হোসেন, জয়নুল আবেদীন, এ জে মোহাম্মদ আলী, মাহবুব উদ্দিন খোকন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা