kalerkantho

মঙ্গলবার । ২১ জানুয়ারি ২০২০। ৭ মাঘ ১৪২৬। ২৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

আট মাস পর বৃত্তির খবর

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি   

৬ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



প্রাথমিক বৃত্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশের আট মাস পর এক ছাত্র জানতে পেরেছে, সে বৃত্তি পেয়েছে। অভিযোগ উঠেছে, প্রধান শিক্ষকের ভুলের জন্যই এত দিন ধরে নিজের ফল জানতে পারেনি ওই ছাত্র। ঘটনাটি ঘটেছে সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলার পুষ্পকাটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে।

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী আশিকুর রহমান উপজেলার ফজলুর রহমানের ছেলে।

পুষ্পকাটি প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি মীর মোহাম্মদ আলী গাজী জানান, ২০১৮ সালের ২৪ মার্চ প্রাথমিক বৃত্তি পরীক্ষার ফল ঘোষণা করা হয়। পরীক্ষায় পুষ্পকাটি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে তিন শিক্ষার্থী বৃত্তি পেলেও ফল ঘোষণার সময় বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক তনিমা পারভীন দুই শিক্ষার্থীর নাম ঘোষণা করেন। দীর্ঘদিন পরে গত চার দিন আগে আশিকুরের বাবা ফজলুর রহমান তাঁর এক শিক্ষক বন্ধুর মাধ্যমে জানতে পারেন, তাঁর ছেলে বৃত্তি পেয়েছে। এরপর তিনি বৃত্তির রেজাল্ট শিট সংগ্রহ করে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি মীর মোহাম্মদ আলী গাজীকে দেখান এবং বিষয়টি নিয়ে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে মৌখিক অভিযোগ করেন।

এ বিষয়ে আশিকুরের বাবা ফজলুর রহমানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘আশিকুর মেধাবী শিক্ষার্থী। সে বৃত্তি পাবে—এমন ধারণা ছিল সবার। ফল ঘোষণার সময় তার নাম না থাকায় হতাশ হয়েছিলাম। পরে খোঁজ নিয়ে রেজাল্ট তালিকা বের করে দেখতে পাই আশিকুর বৃত্তি পেয়েছে।’

তবে অভিযোগ অস্বীকার করে প্রধান শিক্ষক তনিমা পারভীন বলেছেন, ‘ফল প্রকাশের সময় তিন শিক্ষার্থীর নামই ঘোষণা করা হয়। কোনো শিক্ষার্থীর ফল গোপন করা হয়নি।’ 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা