kalerkantho

রবিবার । ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১০ রবিউস সানি ১৪৪১     

কবি ও স্থপতি রবিউল হুসাইন স্মরণসভা

বাংলার ঐতিহ্য ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় ভাস্বর তাঁর সৃষ্টিভুবন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৫ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



বাংলার ঐতিহ্য ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় ভাস্বর তাঁর সৃষ্টিভুবন

কবি ও স্থপতি রবিউল হুসাইন স্মরণসভায় বক্তারা বলেছেন, বাংলার ঐতিহ্য ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় ভাস্বর রবিউল হুসাইনের সামগ্রিক সৃষ্টিভুবন। দেশের আধুনিক বাস্তুকলা বিকাশে তাঁর রয়েছে গুরুত্বপূর্ণ অবদান। ঢাকাসহ দেশের নানা প্রান্তে তাঁর বেশ কিছু স্থাপত্যকর্ম উদ্ভাবনাময় ও নান্দনিক চিন্তার সাক্ষ্য বহন করে। বাংলা একাডেমির ঐতিহাসিক বর্ধমান হাউসসহ বিভিন্ন স্থাপনা সংস্কার এবং সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সম্প্রসারিত অমর একুশে গ্রন্থমেলা বিন্যাসে তিনি গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছেন। তিনি মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্মৃতি জাদুঘর, বাংলাদেশ স্থপতি ইনস্টিটিউট, জাতীয় কবিতা পরিষদসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও সংগঠনে ঘনিষ্ঠভাবে যুক্ত থেকে এ দেশের প্রগতিশীল সাংস্কৃতিক অভিযাত্রায় অগ্রণী ভূমিকা রাখেন।

গতকাল বুধবার বিকেলে বাংলা একাডেমির ফেলো, কবি ও স্থপতি রবিউল হুসাইনের প্রয়াণে স্মরণসভার আয়োজন করে বাংলা একাডেমি। একাডেমির রবীন্দ্র চত্বরে এ স্মরণসভায় আলোচনা, স্মৃতিচারণা ও কবিতা পাঠের মধ্য দিয়ে স্মরণ করা হয় সদ্যঃপ্রয়াত এ গুণীকে।

অনুষ্ঠানের শুরুতে রবিউল হুসাইনের স্মরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। পরে সূচনা বক্তব্য দেন একাডেমির মহাপরিচালক হাবীবুল্লাহ সিরাজী। স্মৃতিচারণা ও আলোচনায় অংশ নেন কবি মুহম্মদ নুরুল হুদা, কবি মুহাম্মদ সামাদ, কবি ফারুক মাহমুদ, কবি গোলাম কিবরিয়া পিনু, কবি আসলাম সানী, কবি আমিনুর রহমান, রবিউল হুসাইনের অনুজ তাইমুর হুসাইন, নিকটাত্মীয় খন্দকার রাশিদুল হক প্রমুখ। প্রয়াত কবিকে নিবেদিত কবিতা পাঠ করেন কবি রবীন্দ্র গোপ, কবি তারিক সুজাত, কবি খোরশেদ বাহার। স্মরণসভায় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন প্রয়াত কবিপুত্র জিসান হুসাইন রবিন, কবি সানাউল হক খান, ড. ইসরাইল খান প্রমুখ। সভাপতিত্ব করেন বাংলা একাডেমির সভাপতি জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান।

হাবীবুল্লাহ সিরাজী বলেন, ‘কবি-স্থপতি রবিউল হুসাইনের প্রয়াণের পর সংগতভাবেই বাংলা একাডেমি থেকে তাঁর রচনাবলি প্রকাশের দাবি উঠেছে। এ দাবির সঙ্গে আমরাও একমত। তবে একই সঙ্গে মনে করি, কোনো কবি বা লেখকের নিবিষ্ট পাঠই তাঁকে তাঁর প্রয়াণের পরও উত্তর প্রজন্মের কাছে বাঁচিয়ে রাখে। আমরা বহুমাত্রিক রবিউল হুসাইনের রচনার নিরন্তর পাঠ প্রত্যাশা করি এবং এই সদাহাস্যময়, সজ্জন, সুপ্রিয় স্বজনের আত্মার চিরশান্তি কামনা করি।’

স্মৃতিচারণা ও আলোচনায় বক্তারা বলেন, কবিতায় আবেগ বর্জনের নীরিক্ষাধর্মী সাধনা করলেও তাঁর শ্রেষ্ঠ কবিতাগুলো আবেগেরই নির্যাসজাত। কবিতার সমান্তরালে তিনি লিখেছেন উপন্যাস, গল্প, প্রবন্ধ-গবেষণা, শিশুসাহিত্য। সম্পাদনা করেছেন ‘কবিতায় ঢাকা’ এবং অনুবাদ করেছেন পাবলো নেরুদা ও অ্যালেন গিন্সবার্গের কবিতা। গত শতকের ষাটের দশকে ‘না’ ছোট কাগজের মধ্য দিয়ে এ দেশের ছোট কাগজ আন্দোলনেও তিনি তাঁর অঙ্গীকারের প্রমাণ রেখে গেছেন।

সভাপতির বক্তব্যে আনিসুজ্জামান বলেন, রবিউল হুসাইন ব্যক্তিজীবনে যেমন মৃদু স্বভাবের ছিলেন, তেমনি তাঁর কবিতা মৃদুস্বরের। তাঁর কবিতা ভালোভাবে পঠিত ও আলোচিত হলে তাঁর ভিন্নধর্মী কাব্যবৈশিষ্ট্য অনুধাবন করা সম্ভব হবে।

তারেক মাসুদ স্মারক বক্তৃতা শুক্রবার : চলচ্চিত্রকার তারেক মাসুদের ৬৩তম জন্মদিন ৎফ উপলক্ষে তারেক মাসুদ মেমোরিয়াল ট্রাস্ট এবং ম্যুভিয়ানা ফিল্ম সোসাইটির উদ্যোগে আয়োজন করা হয়েছে ‘তারেক মাসুদ স্মারক বক্তৃতা ২০১৯’ এবং তারেক মাসুদের বক্তৃতা ও সাক্ষাৎকার গ্রন্থ ‘চলচ্চিত্র কথা’র প্রকাশনা অনুষ্ঠান। শিল্পকলা একাডেমির সহযোগিতায় অনুষ্ঠানটি কাল শুক্রবার বিকেল ৫টায় একাডেমির জাতীয় চিত্রশালা মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হবে।

তারেক মাসুদ স্মারক বক্তৃতার বিষয় ?‘রাজনৈতিক ইসলাম এবং পশ্চিমা সেক্যুলারতন্ত্রের বাইরে : তারেক মাসুদের শিল্প ও সাধনা’। বক্তা রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের চেয়ারম্যান, চলচ্চিত্র গবেষক, লেখক ও অধ্যাপক আ-আল মামুন।

‘তারেক মাসুদ স্মারক বক্তৃতা ২০১৯’ এবং ‘চলচ্চিত্রকথা’ বইয়ের প্রকাশনা অনুষ্ঠানে আলোচনায় অংশ নেবেন তারেক মাসুদ মেমোরিয়াল ট্রাস্টের সমন্বয়ক নাহিদ মাসুদ, ম্যুভিয়ানা ফিল্ম সোসাইটির সভাপতি চলচ্চিত্র নির্মাতা বেলায়াত হোসেন মামুন, ‘চলচ্চিত্রকথা’ গ্রন্থটির প্রকাশক প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান কথাপ্রকাশের কর্ণধার জসিম উদ্দিন এবং চলচ্চিত্র নির্মাতা প্রসূন রহমান। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বিশিষ্ট চলচ্চিত্র গবেষক ও লেখক অনুপম হায়াৎ এবং তারেক মাসুদ মেমোরিয়াল ট্রাস্টের সদস্য বিশিষ্ট মানবাধিকারকর্মী খুশী কবির।

উল্লেখ্য, তারেক মাসুদের বক্তৃতা ও সাক্ষাৎকার গ্রন্থ ‘চলচ্চিত্রকথা’র সংকলক ও সম্পাদক হলেন ক্যাথরিন মাসুদ, প্রসূন রহমান ও বেলায়াত হোসেন মামুন। অনুষ্ঠান শেষে প্রদর্শিত হবে তারেক মাসুদ নির্মিত প্রামাণ্য চলচ্চিত্র ‘আদম সুরত’।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা