kalerkantho

সোমবার । ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯। ১ পোষ ১৪২৬। ১৮ রবিউস সানি                         

আবরার হত্যা

পলাতক চার আসামির সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৪ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পলাতক চার আসামির সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যা মামলার চার্জশিটভুক্ত পলাতক চার আসামির অস্থাবর সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার ঢাকার অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম কায়সারুল ইসলাম এই নির্দেশ দেন। একই আদালতে এক আসামি স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রত্যাহারের আবেদন করেছেন।

গত ১৮ নভেম্বর এই মামলার চার্জশিট গ্রহণ করেন একই আদালত। ওই দিন পলাতক চার আসামির বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারিরও নির্দেশ দেন। গতকাল গ্রেপ্তারি পরোয়ানা তামিলসংক্রান্ত প্রতিবেদন দাখিলের দিন ধার্য ছিল। চার আসামির ঠিকানা সংশ্লিষ্ট থানা কর্তৃপক্ষ পৃথক প্রতিবেদন দাখিল করে আদালতকে জানায়, তাঁদের খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। এই প্রতিবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত ফৌজদারি কার্যবিধির ৮৭ ধারা অনুযায়ী অস্থাবর সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ দেন। একই সঙ্গে আগামী ৫ জানুয়ারি পরবর্তী দিন ধার্য করেন। ওই দিন ক্রোক পরোয়ানা তামিলের প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন।

যে চার আসামির বিরুদ্ধে ক্রোক পরোয়ানা জারি হয় তাঁরা হলেন মুহাম্মদ মোর্শেদ-উজ-জামান (বাড়ি রংপুর জেলার কোতোয়ালি থানার কে সি রায় রোড), এহতেশামুল রাব্বি ওরফে তানিম (বাড়ি সৈয়দপুরের নেয়ামতপুর মুন্সিপাড়া গ্রাম), মো. মোর্শেদ ওরফে মোর্শেদ অমর্ত্য ইসলাম (বাড়ি চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার গোমস্তাপুর থানার কাজীগ্রাম) ও মুজতবা রাফিদ (বাড়ি দিনাজপুর জেলার কোতোয়ালি থানার উত্তর বালুবাড়ি)। রংপুর, নীলফামারী, গোমস্তাপুর ও দিনাজপুর থানা কর্তৃপক্ষ প্রতিবেদন দিয়ে জানায়, আদালতের গ্রেপ্তারি পরোয়ানা পেয়ে তারা আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চালায়। কিন্তু তাঁদের খুঁজে পাওয়া যায়নি।

গত ১৩ নভেম্বর আবরার হত্যা মামলায় ২৫ জনকে আসামি করে চার্জশিট দেওয়া হয়। মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ তদন্ত শেষে এই চার্জশিট দেয়। এই মামলার ২১ আসামিকে ঘটনার পর গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাঁরা বর্তমানে কারাগারে আছেন। চারজন পলাতক রয়েছেন। চার্জশিটভুক্ত সব আসামি বুয়েটের ছাত্র ও ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা