kalerkantho

রবিবার । ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১০ রবিউস সানি ১৪৪১     

মুক্তিযোদ্ধার ওপর ছাত্রলীগের হামলা

ফুলবাড়িয়ায় ক্ষোভ থানায় অভিযোগ

ফুলবাড়িয়া (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি   

৩ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মুক্তিযোদ্ধা ওসমান গণি চৌধুরীর (৮৬) ওপর ছাত্রলীগের হামলার ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছে ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়ার স্থানীয় জনতা। এ ঘটনার নিন্দা জানিয়ে জড়িতদের দ্রুত গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছেন মুক্তিযোদ্ধারা।

এদিকে হামলার ঘটনায় গতকাল সোমবার বিকেলে ওই মুক্তিযোদ্ধার ছেলে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মো. গোলাম রব্বানী বাদী হয়ে ইউপি সদস্য মোফাজ্জল হোসেন, ছাত্রলীগ নেতা মাজাহারুল ইসলাম বাইতুল্লা,আশিক,আহাম্মদ আলী, শাহাদৎ হোসেনসহ আরো পাঁচ-সাতজন অচেনা ব্যক্তিকে আসামি করে ফুলবাড়িয়া থানায় অভিযোগ করেছেন।

গত বৃহস্পতিবার সকালে মুক্তিযোদ্ধা ওসমান গণি চৌধুরী দবরদস্তা বাজার থেকে বাড়ি ফেরার পথে তাঁর ওপর অতর্কিত হামলা চালান ছাত্রলীগ নেতা মাজাহারুল, ইউপি সদস্য মোফাজ্জল, আশিক, আহাম্মদ আলী, শাহাদৎসহ আরো পাঁচ-সাতজন যুবক। এ সময় তাঁকে প্রকাশ্যে জুতাপেটা ও এলোপাতাড়ি কিল-ঘুষিতে মারাত্মক আহত করা হয়। ওই দিনই তাঁকে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

মুক্তিযোদ্ধা উসমান গণি চৌধুরী বলেন, ‘হামলাকারীদের সঙ্গে আমার কোনো শত্রুতা ছিল না। এ ঘটনার বিচার না পেলে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় আমার দাফন না করতে লিখিতভাবে নিষেধ করে যাব।’

উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রকিবুল ইসলাম রকিব বলেন, মুক্তিযোদ্ধার ওপর হামলার ঘটনায় ছাত্রলীগের কেউ জড়িত কি না আমার জানা নেই, যদি কেউ জড়িত থাকে তাঁর বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার এ বি সিদ্দিক বলেন, ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের দ্রুত গ্রেপ্তার করা না হলে মুক্তিযোদ্ধারা কঠিন আন্দোলনে যাবে।

ইউপি সদস্য মোফাজ্জল হোসেন মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলে তাঁর ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

ফুলবাড়িয়া থানার ওসি মো. ফিরোজ তালুকদার বলেন, তদন্ত করে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা