kalerkantho

শুক্রবার । ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ৮ রবিউস সানি ১৪৪১     

দুই ছেলে গ্রেপ্তারের দুই ঘণ্টা পর মাকে হত্যা

শেরপুর প্রতিনিধি   

২৩ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দুই প্রতিবেশী পরিবারের মধ্যে মারামারি হয়েছে সকাল ৯টার দিকে। এ নিয়ে এক পক্ষ থানায় মামলা দায়ের করল দুপুর ১২টার দিকে। পুলিশও তড়িঘড়ি করে মামলা দায়েরের ১২ ঘণ্টার মধ্যে আসামি দুই ভাইকে গ্রেপ্তার করল। আর এর দুই ঘণ্টা পর রাত ২টার দিকে হামলা চালিয়ে দুই ভাইয়ের বৃদ্ধা মাকে পিটিয়ে হত্যা করা হলো। স্থানীয় লোকজনের অভিযোগ, দুই ছেলেকে ‘পুলিশ দিয়ে ধরানোর পর’ তাঁদের বৃদ্ধা মাকে পিটিয়ে হত্যা করেছে বাদীপক্ষ।

গত বৃহস্পতিবার গভীর রাতে শেরপুর সদর উপজেলার রৌহা চরপাড়া গ্রামে এই হত্যাকাণ্ড ঘটে। নিহত জয়নব বেগম (৭০) ওই গ্রামের কৃষক লেবু মিয়ার স্ত্রী। ঘটনার পর থেকে তাঁদের প্রতিপক্ষ কৃষক মোখলেছুর রহমান ও তাঁর সহযোগীরা এলাকা ছেড়ে পালিয়েছে। এই ঘটনার পর পুলিশও হতভম্ব হয়ে পড়ে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে দুই প্রতিবেশী মোখলেছুর রহমান ও লেবু মিয়ার পরিবারের মধ্যে জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। ওই বিরোধপূর্ণ জমিতে ঘর উত্তোলন করে লেবু মিয়ার স্ত্রী-সন্তানরা বসবাস করে আসছিলেন।

এ নিয়ে গত বৃহস্পতিবার সকাল ৯টার দিকে দুই পক্ষের মধ্যে মারপিটের ঘটনা ঘটে। এতে মোখলেছুর রহমান বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার দুপুরে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়েরের পর সদর থানার পুলিশ অভিযান চালিয়ে রাত ১২টার দিকে মামলার আসামি ময়েন ফকির ও গোলাম হককে গ্রেপ্তার করে। এই সুযোগে রাত ২টার দিকে মামলার বাদীপক্ষ মোখলেছুর রহমান ও তাঁদের লোকজন লেবু মিয়ার বাড়িতে হামলা চালায়। এ সময় তাদের এলোপাতাড়ি পিটুনিতে লেবু মিয়ার স্ত্রী জয়নব বেগম ঘটনাস্থলেই মারা যান।

শেরপুর সদর থানার ওসি মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, জমিজমা নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে বিরোধ রয়েছে বলে জানা গেছে। একটি মারপিটের মামলায় নিহতের দুই ছেলেকে আটকের পর বাদীপক্ষের হামলায় এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে নিশ্চিত হওয়া গেছে। এ ব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা