kalerkantho

শনিবার । ১৮ জানুয়ারি ২০২০। ৪ মাঘ ১৪২৬। ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

নীলফামারীতে সবজির বাজারে অস্থিরতা

নীলফামারী প্রতিনিধি   

২৩ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নীলফামারীতে পেঁয়াজের পর এবার অস্থিরতা দেখা দিয়েছে সবজির বাজারে। গতকাল শুক্রবার শসা, ফুলকপি, আলু, শিমসহ অন্যান্য সবজি বিক্রি হয়েছে তুলনামূলক বেশি দামে। ক্রেতারা বলছে, শীতকালীন সবজির দাম দিন দিন কমার কথা। ব্যবসায়ীরা বলছেন, সরবরাহ কম হওয়ায় এসব পণ্যের দাম বেড়েছে। তবে গাজর ও কাঁচা মরিচের দাম কমেছে।

গতকাল দুপুরে জেলা শহরের বাজারে প্রতি কেজি শসা ৯০ টাকা, ফুলকপি ৪৫ থেকে ৫০, দেশি জাতের আলু ৩৫, শিম ৫০ থেকে ৬০ টাকায় বিক্রি হয়। এটি অন্যান্য দিনের তুলনায় বেশি। এ ছাড়া প্রতি কেজি পেঁয়াজ ১৬০ টাকা, রসুন ১৯০, আদা ১৮০, বিলাতি আলু ৫০, নতুন কারেজ আলু ৬০, পুরনো কার্ডিনাল আলু ২২, কারেজ ২৪, বেগুন ১৬, বাঁধাকপি ৩০, ধনেপাতা ৬০, মুলা ২০ ও পটোল ৩০ টাকায় এবং প্রতি হালি ডিম ৩২ টাকায় বিক্রি হয়। কয়েক দিন আগে পুরনো দেশি আলু ৩০ টাকা, শসা ৩০ থেকে ৩৫, ফুলকপি ৩০ থেকে ৪০, শিম ৪০, ডিম ২৮ টাকায় বিক্রি হয়েছে। তবে ১৪০ থেকে ১৬০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হওয়া গাজর এখন ৬০ টাকা। আর ৬০ টাকা কেজি দরের মরিচ এখন ৪০ টাকা।

বাজারের সবজি ব্যবসায়ী আহানার হোসেন (৫৬) বলেন, সবজির দাম অনেক কমেছিল। পেঁয়াজের দাম বাড়ার সঙ্গে সবজি ও রসুনের দাম বেড়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা