kalerkantho

রবিবার । ৯ কার্তিক ১৪২৭। ২৫ অক্টোবর ২০২০। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

মামলা করার ক্ষমতা পেল এটিইউ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২২ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদ মোকাবেলায় গঠিত অ্যান্টি টেররিজম ইউনিট (এটিইউ) পরিচালনার বিধিমালার অনুমোদন দিয়েছে সরকার। গত মঙ্গলবার পুলিশ সদর দপ্তর থেকে ‘অ্যান্টি টেররিজম ইউনিট বিধিমালা ২০১৯’-এর প্রজ্ঞাপন প্রকাশ করা হয়েছে। সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা জানান, এই ইউনিট গঠনের দুই বছর পর বিধিমালা চূড়ান্ত হলো। বিধিমালা অনুমোদনের ফলে জঙ্গি তৎপরতা ও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে জড়িতদের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা, অনুসন্ধান এবং এসংক্রান্ত মামলা করার সরাসরি ক্ষমতা পেল এটিইউ। এখন সাংগঠনিক কাঠামো উন্নয়ন, লোকবল এবং সরঞ্জাম পেলে অভিযান ও মামলা করতে পারবে এই বিশেষ ইউনিট।

বিধিমালায় বলা হয়েছে, কাউন্টার রেডিকালাইজেশন এবং ডি-রেডিকালাইজেশনসহ অন্যান্য কার্যক্রম হাতে নেওয়ার মাধ্যমে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড প্রতিরোধে কার্যকর ভূমিকা রাখবে এটিইউ। গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহ, বিদ্যমান আইন ও বিধি-বিধানের অধীনে ক্ষমতাপ্রাপ্ত কর্তৃপক্ষ বা সংস্থার সহায়তায় উগ্রবাদী-সন্ত্রাসীদের ওপর প্রযুক্তিগত গোয়েন্দা নজরদারি করে তাদের অবস্থান শনাক্ত করা, তাদের কর্মকাণ্ড প্রতিরোধসহ আটকের লক্ষ্যে কার্যকর ব্যবস্থা নিতে পারবে তারা।

বিধিমালায় আরো বলা হয়, সন্ত্রাসী হুমকি মোকাবেলা এবং এর সম্ভাব্য প্রতিকারে আইজিপির (পুলিশের মহাপরিদর্শক) নির্দেশনা অনুযায়ী এ বিষয়ে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোর সঙ্গে তথ্য বিনিময় করবে এটিইউ। উগ্রবাদ ও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের কারণ ও প্রতিকার সংক্রান্ত গবেষণা কার্যক্রম পরিচালনা, নিয়মিত তথ্য সংগ্রহ, বিশ্লেষণ ও বিন্যাসের মাধ্যমে ঝুঁকি পর্যালোচনা করে সরকারের কাছে বার্ষিক প্রতিবেদন দিতে হবে।

এটিইউয়ের পুলিশ সুপার মাহিদুজ্জামান বলেন, ‘কিছু আভিযানিক কার্যক্রম চালানো হলেও এত দিন অনেক সীমাবদ্ধতা ছিল। এখন আভিযানিক কার্যক্রমসহ ইউনিটের বিভিন্ন পর্যায়ে পুরোদমে কাজ শুরুর প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে।’

বিধিমালা অনুযায়ী, এই ইউনিটের অধীনে বিশেষায়িত টিম বা স্কোয়াড গঠন করা যাবে। স্পেশাল ওয়েপন অ্যান্ড ট্যাকটিস (সোয়াট) টিম, ক্রাইম সিন ও বোম ব্লাস্ট ইনভেস্টিগেশন টিম, ক্রাইসিস ইমার্জেন্সি রেসপন্স টিম, এক্সপ্লোসিভ ডিসপোজাল টিম এবং কে-নাইন স্কোয়াডসহ প্রয়োজনীয় অন্যান্য বিশেষায়িত টিম বা স্কোয়াড গঠন করতে পারবেন এই ইউনিটের প্রধান। থানার ওসির মতো গ্রেপ্তার, আটক, তল্লাশি, জব্দসহ অন্য ক্ষমতাও প্রয়োগ করতে পারবেন ইউনিটের কর্মকর্তারা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা