kalerkantho

শনিবার । ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৬ রবিউস সানি               

রংপুরে আ. লীগের সম্মেলন

চাঙ্গাভাবের সঙ্গে আছে দ্বিধাও

নিজস্ব প্রতিবেদক, রংপুর   

২২ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রংপুর জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের সম্মেলন ঘিরে নেতাকর্মীরা খানিকটা চাঙ্গা হলেও নানা বিষয়ে তাঁদের মধ্যে দ্বিধা তৈরি হয়েছে। দলের অনেক নেতা মনে করছেন, ২৬ নভেম্বর জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের সম্মেলন হবে ঠিকই, তবে সভাপতি-সম্পাদকদের নাম ঘোষণা হবে কেন্দ  থেকে। কেউ কেউ বলছেন, এবার কাউন্সিলরদের সরাসরি ভোটে শীর্ষ নেতা নির্বাচন করা হবে।

আবার রংপুর আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশকারীদের তালিকা সামনে এসেছে শুধু পীরগাছা উপজেলার। সেখানে ২২ জনের নাম রয়েছে। কিন্তু বাকি সাতটি উপজেলার অনুপ্রবেশকারীদের তালিকা এখনো সামনে আসেনি। ফলে অনেকে আশঙ্কা করছেন, এবারের সম্মেলনে অনেক অনুপ্রবেশকারীই দলের গুরুত্বপূর্ণ পদ পেয়ে যেতে পারেন।

দলের অনেক নেতা মনে করছেন, আগের মতো এবারও কেন্দ  থেকে সভাপতি-সম্পাদকের নাম ঘোষণা হতে পারে। এ কারণে ঢাকায় ধরনা দিচ্ছেন তাঁরা। আবার যাঁদের ধারণা ভোটের মাধ্যমে নেতা নির্বাচন হবে, তাঁরা ধরনা দিচ্ছেন কাউন্সিলরদের দ্বারে দ্বারে। জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি পদে এবার বর্তমান জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মমতাজ উদ্দিন আহমেদ, মুক্তিযোদ্ধা মোছাদ্দেক হোসেন বাবলু, সাবেক সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট হোসনে আরা লুৎফা ডালিয়াসহ বেশ কয়েকজনের নাম শোনা যাচ্ছে। সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থীদের মধ্যে অ্যাডভোকেট রেজাউল করিম রাজু, অধ্যাপক মাজেদ আলী বাবুল, অ্যাডভোকেট আনোয়ারুল ইসলাম ও তৌহিদুর রহমান টুটুলের নাম শোনা যাচ্ছে।

মহানগর শাখার সভাপতি হওয়ার জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন বর্তমান সভাপতি সাফিউর রহমান শফি, সহসভাপতি শামীম তালুকদার, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের সভাপতি তৌহিদুল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ আবুল কাশেমসহ বেশ কয়েকজন। সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী হিসেবে প্রচারণা চালাচ্ছেন বর্তমান সাধারণ সম্পাদক তুষার কান্তি মণ্ডল, সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম তোতা, প্রচার সম্পাদক রেজাউল ইসলাম মিলন, মহানগর জাতীয় শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক এম এ মজিদ, সাবেক ছাত্রনেতা দিলশাদ ইসলাম মুকুল, মহানগর আওয়ামী লীগ নেতা নওশাদ রশিদ, সহিদুল ইসলাম হীরা প্রমুখ।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা