kalerkantho

সোমবার। ২৭ জানুয়ারি ২০২০। ১৩ মাঘ ১৪২৬। ৩০ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

বায়ুদূষণে নয়াদিল্লিকে ছাড়াল ঢাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২০ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দক্ষিণ এশিয়ার অন্যতম দূষিত বায়ুর শহর হিসেবে পরিচিত ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লি। বরাবরই ঢাকার বায়ুর মান ছিল দিল্লির চেয়ে ভালো। কিন্তু গতকাল মঙ্গলবার ঢাকার দূষণের মাত্রা নয়াদিল্লিকে ছাড়িয়ে গেছে।

জানা গেছে, বাতাসের মান সার্বক্ষণিক পর্যবেক্ষণের জন্য ‘তাত্ক্ষণিক বায়ুমান সূচি’ বেশ জনপ্রিয়। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসের বসানো একটি যন্ত্রের সাহায্যে ঢাকার বাতাসের মান জানা যায় সার্বক্ষণিক। একই প্রকল্পের আওতায় নয়াদিল্লিতেও মার্কিন দূতাবাস বায়ুর মান নির্দেশ করতে যন্ত্র বসিয়েছে। বায়ুদূষণের মাত্রা বোঝাতে ০-৩০০ পর্যন্ত নম্বর ব্যবহার করে যন্ত্রটি। যে শহরের বাতাসে ভাসমান বস্তুকণা বেশি সে শহরের বায়ুমান সূচিতে নম্বর বেশি হয়। সেই সূচিতে গতকাল সকাল ৯টার দিকে ঢাকার নম্বর ছিল ৩১৮, যা ভয়ংকর দূষণ নির্দেশ করে। অন্যদিকে নয়াদিল্লির নম্বর ছিল ২৬০ বা অতি অস্বাস্থ্যকর। আবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে ঢাকার নম্বর ছিল ২০৭ বা অতি অস্বাস্থ্যকর। অন্যদিকে নয়াদিল্লির ছিল ১৫৮, যা অস্বাস্থ্যকর। মূলত ঢাকার অপরিকল্পিত উন্নয়ন, ইটভাটা চালু এবং ফিটনেসবিহীন গাড়ির কারণে বায়ূর মান নয়াদিল্লিকে ছাড়িয়েছে বলে মনে করেন পরিবেশবিদরা।

বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) যুগ্ম সাধারণ অধ্যাপক ড. আহমেদ কামরুজ্জামান মজুমদার সাংবাদিকদের বলেন, ‘ঢাকার এই অবস্থা দীর্ঘদিনের ফল। মূলত রাস্তার ধুলা এবং গাড়ির ধোঁয়া কুয়াশার সঙ্গে মিশে যায়। ওই সময় বাতাসের গতি কম থাকায় ওপরে উঠতে পারে না। এই অবস্থা নয়াদিল্লি, বেইজিং এবং একসময় লন্ডন শহরেও ছিল। সচেতন না হলে এই অবস্থা স্থায়ী হতে পারে ঢাকায়।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা