kalerkantho

বুধবার । ২৯ জানুয়ারি ২০২০। ১৫ মাঘ ১৪২৬। ৩ জমাদিউস সানি ১৪৪১     

বিশ্ব টয়লেট দিবস পালন করল ‘ডমেক্স’

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২০ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বিশ্ব টয়লেট দিবস পালন করল ‘ডমেক্স’

পরিচ্ছন্নতার যুদ্ধে বিশ্ব টয়লেট দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশের প্রতিটি স্কুলে পরিচ্ছন্ন টয়লেট নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ডমেক্স আয়োজিত মিরপুর পুলিশ স্টাফ কলেজ মাঠে শপথবাক্য পাঠ করেন উপস্থিত সবাই। ছবি : কালের কণ্ঠ

পরিচ্ছন্নতায় বিশ্ব রেকর্ড গড়ার মধ্য দিয়ে বিশ্ব টয়লেট দিবস উদ্‌যাপন করেছে ইউনিলিভারের টয়লেট ক্লিনিং ব্র্যান্ড ডমেক্স। গতকাল মঙ্গলবার রাজধানীর মিরপুরে পুলিশ স্টাফ কলেজ মাঠে আয়োজন করা হয় নানা কর্মসূচি। এর মধ্যে পরিচ্ছন্নতায় গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ড অর্জনে আয়োজন করা হয় বিশ্বের সবচেয়ে বড় ‘প্রডাক্ট স্যাশে ওয়ার্ড’।

আয়োজকরা জানান, বাংলাদেশের বিদ্যালয়গুলোর ৭৫ শতাংশ টয়লেট ব্যবহারের অনুপযোগী। ফলে দুই কোটির বেশি শিশু কলেরা, টায়ফয়েড, ডায়রিয়াসহ মারাত্মক রোগের ঝুঁকিতে রয়েছে। এ অবস্থায় স্বাস্থ্যসম্মত টয়লেট ব্যবহারে সচেতনতা বাড়াতে দিবসটি উদ্‌যাপন করেছে ডমেক্স।

সরেজমিনে দেখা যায়, পরিষ্কারক সামগ্রী দিয়ে পুলিশ স্টাফ কলেজের মাঠে বড় করে ‘ডমেক্স’ শব্দটি লিখেছে আয়োজনকারীরা। এই রেকর্ড বিশ্বের কোনো ব্র্যান্ডের নেই বলেও জানিয়েছেন তাঁরা। এ ছাড়া স্কুল স্যানিটেশন বিষয়ে সচেতনতা বাড়াতে শিক্ষার্থী, গণমাধ্যমকর্মী, শিক্ষক এবং স্বেচ্চাসেবীদের নিয়ে বিভিন্ন কর্মসূচি পালিত হয়েছে। ‘আর নয় নোংরা টয়লেট’ নামে একটি পরিচ্ছন্নতা অভিযানও শুরু করেছে ডমেক্স।

অনুষ্ঠানে স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেন, ২০২৩ সালের মধ্যে শতভাগ স্কুলে ছেলে ও মেয়েদের জন্য পরিষ্কার টয়লেট স্থাপনের পরিকল্পনা আছে সরকারের।

ইউনিলিভারের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কেদার লেলে বলেন, ৫০ বছর ধরে ইউনিলিভারের পরিষ্কারক পণ্য ব্যবহার করছে বাংলাদেশের মানুষ। এখনো অনেক স্কুলে টয়লেট নেই। আবার টয়লেট থাকলেও তা ব্যবহারের উপযোগী নয়। তাই শিশুদের স্বাস্থ্য ঝুঁকি কমাতে স্বাস্থ্যসম্মত টয়লেট ব্যবহার জরুরি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা