kalerkantho

শনিবার । ১৮ জানুয়ারি ২০২০। ৪ মাঘ ১৪২৬। ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

পেটে গজ-ব্যান্ডেজ রেখেই সেলাই করার অভিযোগ

রংপুরে প্রসূতির মৃত্যু

রংপুর অফিস   

১৯ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পেটে গজ-ব্যান্ডেজ রেখেই সেলাই করার অভিযোগ

প্রতীকী ছবি

রংপুরে অস্ত্রোপচারের পর পেটে গজ-ব্যান্ডেজ রেখেই সেলাই করায় এক প্রসূতির মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগটি উঠেছে নগরীর ধাপ এলাকায় অবস্থিত রোজ প্রাইভেট হাসপাতালের বিরুদ্ধে। অভিযোগ তদন্তে তিন সদস্যের কমিটি করেছেন রংপুরের সিভিল সার্জন।

নাসিমা বেগম নামের ওই প্রসূতি রংপুর নগরীর মীরগঞ্জ তামপাট এলাকার রাশেদুল ইসলামের স্ত্রী। স্বজনরা জানায়, গত ৫ নভেম্বর রোজ প্রাইভেট হাসপাতালে ভর্তি করানো হয় নাসিমাকে। ওই দিনই তাঁর সিজার হয়। তিনি পুত্রসন্তান প্রসব করেন। কিন্তু হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফেরার পর নাসিমার পেট ফুলে যেতে থাকে। সঙ্গে তীব্র যন্ত্রণায় ছটফট শুরু করেন তিনি। এরপর ১২ নভেম্বর রোজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ভর্তি না নিয়ে ব্যবস্থাপত্র দিয়ে তাঁকে ছেড়ে দেয়। বাড়ি ফিরে আরো অসুস্থ হয়ে পড়লে গত শুক্রবার নাসিমাকে নেওয়া হয় রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। সেখানে আলট্রাসনোগ্রাম করে দেখা যায়, তাঁর পেটে গজ-ব্যান্ডেজ রয়েছে। গত রবিবার দুপুরে অস্ত্রোপচার করে সেগুলো বের করেন চিকিৎসকরা। কিন্তু ওই দিন রাতেই মৃত্যু হয় তাঁর।

রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের সার্জিক্যাল ওয়ার্ডের চিকিৎসক ডা. স্বপন কুমার জানান, ‘অস্ত্রোপচারে ওই নারীর পেটে গজ-ব্যান্ডেজ পাওয়া যায়। রোগীর অবস্থা এমনিতেই গুরুতর ছিল। তাঁর পেট ফুলে গিয়েছিল। ভেতরে রক্তক্ষরণ হওয়ায় রোগীকে বাঁচানো সম্ভব হয়নি।’

রোজ প্রাইভেট হাসপাতালের ব্যবস্থাপক মিলন মিয়া দাবি করেন, ‘রোগীর পেটে পুঁজ হয়ে ইনফেকশন হয়েছিল। পেটে গজ-ব্যান্ডেজ রেখে সেলাই দেওয়ার বিষয়টি সত্য নয়।’

রংপুরের সিভিল সার্জন ডা. হিরম্ব কুমার রায় বলেন, ‘ঘটনা তদন্তে ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. কানিজ সাবিহাকে প্রধান করে তিন সদস্যের কমিটি করা হয়েছে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা