kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৩০ জানুয়ারি ২০২০। ১৬ মাঘ ১৪২৬। ৪ জমাদিউস সানি ১৪৪১     

নূর হোসেনকে নিয়ে কটূক্তি

সংসদে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইলেন জাপার রাঙ্গা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৪ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সংসদে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইলেন জাপার রাঙ্গা

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং শহীদ নূর হোসেনকে নিয়ে অবমাননাকর বক্তব্যের জন্য সমালোচনার মুখে পড়ে জাতীয় সংসদে দাঁড়িয়ে ‘নিঃশর্ত ক্ষমা’ চেয়েছেন জাতীয় পার্টির (জাপা) মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা। তিনি বলেন, ‘আমি একটা ভুল করেছি। তার জন্য শহীদ নূর হোসেনের মায়ের কাছে চিঠি দিয়ে ক্ষমা চেয়েছি। আর বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে কোনো ভুল কিছু যদি বলে থাকি সে জন্যও সবার কাছে করজোড়ে নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা করছি।’

গতকাল বুধবার জাতীয় সংসদ অধিবেশনে কার্যপ্রণালী বিধির ২৭৪ বিধি অনুযায়ী ব্যক্তিগত কৈফিয়ত দিতে দাঁড়িয়ে তিনি এই ক্ষমা প্রার্থনা করেন। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অধিবেশনে রাঙ্গা আত্মপক্ষ সমর্থন করতে গিয়ে বলেন, ‘গত ১০ নভেম্বর জাতীয় পার্টির অভ্যন্তরীণভাবে গণতন্ত্র দিবস পালন নিয়ে একটি সভা ছিল ছোট পরিসরে। সেখানে আমার দেওয়া বক্তব্য নিয়ে সংসদে অনেকে কথা বলেছেন। আমি মনে করি, সিনিয়র মন্ত্রী-নেতারা আমাকে শাসন করে বক্তব্য দিয়েছেন। তবে আমি একটা ভুল করেছি, ভুল করার জন্য শহীদ নূর হোসেনের পরিবারের কাছে আমি ক্ষমা প্রার্থনা করেছি এবং বিবৃতি পর্যন্ত দিয়েছি। আর জাতির জনক সম্পর্কে যদি আমি কোনো রকম কিংবা কোনো কিছু ভুল বলে থাকি সে জন্য আমি নিঃশর্ত ক্ষমা চাচ্ছি।’

মসিউর রহমান রাঙ্গা বলেন, ‘অনুষ্ঠানে আমি কখনোই সন্ত্রাসবাদ, দুর্নীতিবাজ এগুলো বলিনি। আমি বলেছি, বিশ্বজিৎ হত্যার বিচার হয়েছে, ক্যাসিনো নিয়েও বিচার হয়েছে। আমি বলেছি, ১৯৯০ সালের পর যখন খালেদা জিয়া ক্ষমতায় আসলেন তখন সারের জন্য ১৮ জন কৃষককে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে, গ্রেনেড হামলা হয়েছিল। এই অস্ত্র বাইরের দেশ থেকে নিয়ে আসা হয়েছিল তৎকালীন বিরোধী দলের নেতাকে হত্যার জন্য। এই কথাগুলো রেকর্ড আছে।’

সবার কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করে জাপা মহাসচিব বলেন, ‘তার পরেও আমি নিঃশর্তভাবে ক্ষমা চাচ্ছি, যদি এটা ভুল করে থাকি। অবশ্যই আমি করজোড়ে তাদের কাছে ক্ষমা চাচ্ছি। আমার সহকর্মী আছেন, তাঁরা এটা শুনে ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন।’ তিনি বলেন, ‘আমি মনে করি, আমার দল ক্ষমতায় থাকলেও হয়তো মন্ত্রী হতে পারতাম না, প্রধানমন্ত্রী আমাকে মন্ত্রী বানিয়েছেন। আমাকে স্নেহ করতেন, অনেক ভালোবাসতেন। আমি কাউকে কটাক্ষ করে কিছু বলতে চাচ্ছি না। আমি সমস্ত দোষ আমার ঘাড়ে নিচ্ছি। আমার হয়তো বলতে ভুলত্রুটি হতে পারে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা