kalerkantho

সোমবার। ২৭ জানুয়ারি ২০২০। ১৩ মাঘ ১৪২৬। ৩০ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

মা-বাবা-ভাইয়ের প্রতিক্রিয়া

দ্রুত অভিযোগপত্র দেওয়ায় খুশি খুনিদের ফাঁসি দেখতে চাই

নিজস্ব প্রতিবেদক, কুষ্টিয়া   

১৪ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বুয়েটের শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডের এক মাস সাত দিনের মাথায় জড়িত ২৫ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দেওয়ায় আপাতত খুশি আবরারের পরিবারের সদস্যরা। তবে দ্রুত সময়ের মধ্যে দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনালের মাধ্যমে বিচারকাজ শেষে খুনিদের ফাঁসি দেখতে চান আবরারের মা, বাবা, ভাইসহ পরিবারের অন্য সদস্যরা। একই সঙ্গে শিক্ষার্থীর বিষয়ে বুয়েট কর্তৃপক্ষের অবহেলার বিষয়েও প্রতিক্রিয়া জানান তাঁরা। গতকাল বুধবার আদালতে চার্জশিট দাখিলের পর কুষ্টিয়া শহরের পিটিআই রোডে আবরার ফাহাদের বাসায় এই প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন পরিবারের সদস্যরা।

আবরারের মা রোকেয়া খাতুন বলেন, ‘পুলিশ কথা রেখেছে। তারা বলেছিল নিরপেক্ষভাবে দ্রুত সময়ের মধ্যে আদালতে চার্জশিট দাখিল করবে। এ জন্য তাদের ধন্যবাদ। পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজে আবরার ফাহাদের বিচারের দায়িত্ব নেন। সেই দায়িত্ববোধ থেকে তিনি নিজে বিষয়টি মনিটরিং করছেন। তাই আমরা তাঁকেও ধন্যবাদ জানাই।’ তিনি আরো বলেন, ‘সব মিলিয়ে ২৫ জনকে অভিযুক্ত করা হয়েছে বলে শুনেছি। চার্জশিটের কপিতে কী আছে আমরা জানি না। তবে চার্জশিট যেমন দ্রুত হলো, এখন দ্রুততম সময়ে দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনালের মাধ্যমে বিচার করতে হবে অপরাধীদের। অপরাধের ধরন অনুযায়ী সবাইকে কঠোর ও সর্বোচ্চ সাজা দিতে হবে।’ পাশাপাশি আবরারের মা বলেন, ‘বুয়েট কর্তৃপক্ষের অবহেলার বিষয়টি আমরা বলে আসছিলাম। পুলিশও তদন্তে সেটার প্রমাণ পেয়েছে। তাই এখন থেকে তাদেরও প্রতিটি শিক্ষার্থীর ব্যাপারে যত্নবান হতে হবে। যাতে আর কোনো আবরারকে আমাদের হারাতে না হয়।’

আবরারের ছোট ভাই আবরার ফায়াজ বলেন, ‘স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে আমাদের দাবি, ভাইয়ার মামলাটি যেন দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনালের মাধ্যমে করা হয়।’ আবরার ফাহাদের বাবা বরকত উল্লাহ বলেন, ‘প্রাথমিকভাবে আমরা পুলিশের কাজে খুশি। আমরা শুনেছি তারা তদন্ত করে ১৯ জনের পরিবর্তে ২৫ জনের সম্পৃক্ততা পেয়ে অভিযোগপত্র দিয়েছে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা