kalerkantho

শুক্রবার । ৮ মাঘ ১৪২৭। ২২ জানুয়ারি ২০২১। ৮ জমাদিউস সানি ১৪৪২

বহিরাগতের বঁটির কোপে আহত ছাত্রলীগকর্মী

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

১০ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বহিরাগতের বঁটির কোপে আহত ছাত্রলীগকর্মী

বহিরাগত এক ছাত্রী রাখা নিয়ে ইডেন মহিলা কলেজের শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব ছাত্রীনিবাসে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এ সময় বহিরাগত নাবিলার বঁটির কোপে আহত হয়েছেন ছাত্রলীগকর্মী তামান্না। গতকাল শনিবার সকাল ৮টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে কলেজ ক্যাম্পাসে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

কলেজ সূত্র জানায়, বঙ্গমাতা ছাত্রীনিবাসের ২১৯ নম্বর কক্ষে নাবিলা নামের বহিরাগত এক ছাত্রীকে টাকার বিনিময়ে রাখতেন কলেজ শাখা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মাহবুবা নাসরিন রূপা। এ ঘটনা জানতে পেরে হলের ছাত্রলীগের অন্য গ্রুপের মেয়েরা নাবিলাকে বের করে দিতে গেলে বাগিবতণ্ডা শুরু হয়। একপর্যায়ে ছাত্রলীগকর্মী সাবিকুন্নাহার তামান্নার হাতে বঁটি দিয়ে কোপ দেওয়া হয়। আহত তামান্নাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। এ ঘটনার পর অন্য পক্ষ রূপার গ্রুপের কর্মীদের ওপর পাল্টাহামলা চালায়। পরে বহিরাগত নাবিলাকে লালবাগ থানায় সোপর্দ করে হল প্রশাসন।

আহত তামান্না ইডেন মহিলা কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সদস্য। রূপার অনুসারী নাবিলা তাঁর হাতে কোপ দিয়েছেন জানিয়ে তামান্না বলেন, মাহবুবা নাসরিন রূপার ছাত্রত্ব নেই, রাজনৈতিক কোনো পদও নেই। তার পরও ইডেন কলেজের ২০-২৫টির মতো কক্ষ আছে তাঁর দখলে। এখানে অন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীদের টাকার বিনিময়ে তিনি রাখতেন। তাঁর ভাড়ার টাকা তুলে দেন নাবিলা।

কলেজ ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মাহবুবা নাসরিন রূপা বলেন, ‘আমি কারো ওপর হামলা করিনি। ইডেন কলেজ ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক আঞ্জুমান আরা অনু আমার সমর্থকদের মারধর করেছে।’ তিনি বলেন, ‘নাবিলা বহিরাগত না। সে ইডেন কলেজ থেকে ডিগ্রি পাস করা। সে আমার এলাকার মেয়ে। আমার কক্ষেই ছিল।’

লালবাগ থানার ওসি এ কে এম আশরাফ উদ্দিন বলেন, ‘আমরা শুনেছি হলে মেয়েদের মধ্যে ঝামেলা হয়েছে। কয়েকজন আহত হয়েছে। ঘটনার পর সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।’

কলেজের অধ্যক্ষ শামসুন নাহারের মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও তাঁর সাড়া মেলেনি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা