kalerkantho

মঙ্গলবার। ৫ মাঘ ১৪২৭। ১৯ জানুয়ারি ২০২১। ৫ জমাদিউস সানি ১৪৪২

সংক্ষিপ্ত

১২ নভেম্বরকে ‘উপকূল দিবস’ করার দাবি

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

১০ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



১৯৭০ সালের ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্তদের স্মরণে ১২ নভেম্বরকে ‘উপকূল দিবস’ হিসেবে রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি দেওয়ার দাবি তুলেছে দুটি সংগঠন। গতকাল শনিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক আলোচনাসভায় ‘কোস্টাল জার্নালিজম নেটওয়ার্ক’ এবং ‘চেঞ্জ ইনিশিয়েটিভ’ এ দাবি তুলে ধরে। সভায় বক্তরা বলেন, ১৯৭০ সালের ১২ নভেম্বরের ‘ভোলা ঘূর্ণিঝড়কে’ উপকূল দিবস করার দাবি ওঠে ২০১৭ সালে। ওই বছর থেকেই দেশের উপকূলীয় অঞ্চলে দিনটি উপকূল দিবস হিসেবে পালিত হয়ে আসছে। এতে সাড়াও মিলেছে ব্যাপক। বক্তারা বলেন, উপকূলবাসীকে বাইরে রেখে উন্নয়ন সম্ভব নয়। ওই অঞ্চলের উন্নয়নের জন্য স্বল্প ও দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা গ্রহণ করতে হবে। সংসদ সদস্য মেজর (অব.) আব্দুল মান্নান বলেন, ‘বাংলাদেশে বন্যাকে আয়ের উৎস মনে করত পাকিস্তান। কারণ এ দেশে বন্যা হলে বহির্বিশ্ব থেকে ত্রাণ আসবে। পাকিস্তান লাভবান হবে। কিন্তু এখন দেশে আগের মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগ হয় না।’ সভায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন উপকূল দিবস বাস্তবায়ন কমিটির প্রধান সমন্বয়কারী রফিকুল ইসলাম মন্টু। সভাপতিত্ব করেন ডরপের প্রতিষ্ঠাতা এ এইচ এম নোমান। সভায় অন্যদের মধ্যে সংসদ সদস্য এস এম শাহাজাদা, সংবিধান বিশেষজ্ঞ ইকতেদার আহমেদ প্রমুখ বক্তব্য দেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা