kalerkantho

রবিবার। ১৭ নভেম্বর ২০১৯। ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

শিক্ষার্থী নাঈমুল আবরারের মৃত্যু

আয়োজকদের বিরুদ্ধে গাফিলতির অভিযোগ কলেজের তদন্তে

কবর থেকে লাশ উত্তোলন ময়নাতদন্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১০ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আয়োজকদের বিরুদ্ধে গাফিলতির অভিযোগ কলেজের তদন্তে

রাজধানীর মোহাম্মদপুরের ঢাকা রেসিডেনসিয়াল মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থী নাঈমুল আবরার রাহাতের মৃত্যুর ঘটনায় তদন্ত শেষ করেছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটির গঠন করা তদন্ত কমিটি। আইনগত তদন্তে সহায়তার জন্য তাদের প্রতিবেদনটি পুলিশ, র‌্যাব ও জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের তদন্তকারীদের কাছেও হস্তান্তর করা হয়েছে। আগামীকাল সোমবার ওই তদন্ত প্রতিবেদন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে জমা দেওয়া হবে বলে জানান সংশ্লিষ্টরা।

এদিকে আদালতের নির্দেশে মৃত্যুর আট দিন পর গতকাল শনিবার দুপুরে নোয়াখালীর সোনাইমুড়ীর পারিবারিক কবরস্থান থেকে নাঈমুল আবরারের লাশ উত্তোলন করে নোয়াখালীর জেনারেল হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে পুলিশ। রেসিডেনসিয়াল কলেজ ও পুলিশের দুুটি সূত্র জানিয়েছে, কলেজ কমিটির তদন্তে নাঈমুল আবরারের মৃত্যুর ঘটনায় অনুষ্ঠান আয়োজকদের কিছু ‘গাফিলতির’ আলামত মিলেছে। ভবিষ্যতে যেন এমন ঘটনা না ঘটে তা নিশ্চিত করতে কলেজ কর্তৃপক্ষ আইনগত তদন্তকারীদের সহায়তা করে যাচ্ছে বলে জানায় সূত্র।

ঢাকা রেসিডেনসিয়াল মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ ব্রিগেডিয়ার জেনারেল কাজী শামীম আহমেদ কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আমাদের তদন্ত শেষ। দুই-তিন দিন সরকারি অফিস যেহেতু বন্ধ, সেহেতু সোমবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে তদন্ত রিপোর্ট পাঠানো হবে। এ ছাড়া যারা আইনগত তদন্ত করছে তাদের মধ্যে যেসব সংস্থা আমাদের সহায়তা চেয়েছে তাদেরও অফিশিয়ালি তদন্ত রিপোর্ট দেওয়া হয়েছে।’ তিনি উল্লেখ করেন, পুলিশের পাশাপাশি র‌্যাব ও জাতীয় মানবাধিকার কমিশন ঘটনাটির তদন্ত করছে বলে কলেজ কর্তৃপক্ষ জেনেছে। 

জানতে চাইলে মোহাম্মদপুর থানার ওসি গোপাল গণেশ বিশ্বাস বলেন, ‘তদন্ত রিপোর্ট আমরা পাইনি। তবে কলেজের সহায়তা নিয়ে তদন্ত করছি। আরো অনেক বিষয় দেখা হচ্ছে। বিজ্ঞ আদালতের নির্দেশে কবর থেকে লাশ উত্তোলন করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।’

আমাদের নোয়াখালী প্রতিনিধি জানান, গতকাল দুপুরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইলিশায় রিসিলের উপস্থিতিতে সোনাইমুড়ী উপজেলার সোনাপুর ইউনিয়নের ধন্যপুর গ্রামের মাওলানা মোহাম্মদউল্যা বাড়ির পারিবারিক কবরস্থান থেকে নাঈমুল আবরারের লাশ উত্তোলন করা হয়েছে। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও মোহাম্মদপুর থানার পরিদর্শক আব্দুল আলিম জানান, আদালতের নির্দেশে লাশ উত্তোলন করে ময়নাতদন্তের জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

প্রসঙ্গত, পরিবারের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গত ২ নভেম্বর ময়নাতদন্ত ছাড়াই নোয়াখালীর গ্রামের বাড়িতে নাঈমুল আবরারের লাশ দাফন করা হয়। ৩ নভেম্বর একটি অপমৃত্যু মামলা হয় মোহাম্মদপুর থানায়। তবে মৃত্যুর ঘটনাকে আয়োজকদের অব্যবস্থাপনা বলে দায়ী করে আন্দোলনে নামে শিক্ষার্থীরা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা