kalerkantho

বুধবার । ২০ নভেম্বর ২০১৯। ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২২ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

‘ভালোবাসা’র ছায়া ছেড়ে চলে গেলেন নবনীতা দেবসেন

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৮ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



‘ভালোবাসা’র ছায়া ছেড়ে চলে গেলেন নবনীতা দেবসেন

ভারতের প্রখ্যাত সাহিত্যিক নবনীতা দেবসেন আর নেই। গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টা ৩৫ মিনিটে ৮১ বছর বয়সে দক্ষিণ কলকাতার বাসভবন ‘ভালোবাসা’তেই মৃত্যু হয় তাঁর। ১৯৩৮ সালের ১৩ জানুয়ারি কলকাতার হিন্দুস্তান পার্ক এলাকার এই বাড়িতেই জন্মগ্রহণ করেন তিনি। কবি, সাহিত্যিক, লেখক, প্রাবন্ধিক নবনীতা দেবসেন দীর্ঘদিন ধরে ক্যান্সারে ভুগছিলেন। এর মধ্যেও লেখালেখি চালিয়ে গেছেন। তাঁর মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ সাহিত্য ও সংস্কৃতি জগৎ। পরিবার সূত্র জানিয়েছে, আজ শুক্রবার তাঁর শেষকৃত্য হবে। তাঁর মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শোকবার্তায় মমতা লেখেন, ‘বিশিষ্ট সাহিত্যিক ও শিক্ষাবিদ নবনীতা দেবসেনের প্রয়াণে আমি গভীর শোক প্রকাশ করছি।’ এ ছাড়া শোক জ্ঞাপন করেছেন অধীর চৌধুরী, বিমান বসুসহ রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বরা।

অর্থনীতিতে নোবেলজয়ী অমর্ত্য সেনের সঙ্গে ১৯৫৯ সালে বিয়ে হয়েছিল নবনীতার। তাঁদের দুই মেয়ে অন্তরা দেবসেন ও নন্দনা সেন। ১৯৭৬ সালে তাঁদের বিবাহবিচ্ছেদ হয়ে যায়। এরপর উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশে যান তিনি। শিক্ষাবিদ নবনীতা অধ্যাপনা করেছেন যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের তুলনামূলক সাহিত্য বিভাগে। তিনি আমেরিকার কলোরাডো কলেজের তুলনামূলক সাহিত্যের প্রফেসর ছিলেন। এ ছাড়া তিনি অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের রাধাকৃষ্ণাণ স্মারক লেকচারার ছিলেন।

পদ্মশ্রী, সাহিত্য একাডেমিসহ বহু গুরুত্বপূর্ণ পুরস্কারজয়ী নবনীতার জন্ম কলকাতায়। তিনি রাধারানি দেবী ও নরেন্দ্রনাথ দেবের মেয়ে। বাবা ও মা দুজনই কবি। নবনীতাও আজীবন কাব্যচর্চা করে গেছেন। কবিতা ও গদ্য, উভয় ক্ষেত্রেই তিনি সিদ্ধহস্ত। এ ছাড়া ভ্রমণকাহিনি রচনায়ও তাঁর দক্ষতা অনস্বীকার্য।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা