kalerkantho

মঙ্গলবার । ১২ নভেম্বর ২০১৯। ২৭ কার্তিক ১৪২৬। ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

ঈশ্বরগঞ্জে পোশাক শ্রমিককে দলবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, ময়মনসিংহ   

৬ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে এক পোশাক শ্রমিক দলবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত রবিবার গভীর রাতে ঈশ্বরগঞ্জ পৌরসভা এলাকায় এ নির্যাতনের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় শাহীন, রাজ্জাক ও সোহেল নামের তিন ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এদিকে নান্দাইলে পুকুরঘাটে চাচাতো বোনকে ধর্ষণের অভিযোগে শাকিল নামের এক যুবকের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

পুলিশ জানায়, ঈশ্বরগঞ্জে নির্যাতনের শিকার ওই নারীর বাড়ি পঞ্চগড়ের সদর থানায়। গার্মেন্টে চাকরি করার সুবাদে তিনি রাজধানীর খিলক্ষেত এলাকায় ভাড়া বাসায় থাকতেন। ওই বাসার পাশে থাকত ঈশ্বরগঞ্জের লংগাইল গ্রামের শাহীন ও এনায়েতনগর গ্রামের সোহেল। তারা কাঁচামালের ব্যবসার সঙ্গে সম্পৃক্ত। চার মাস ধরে শাহীনের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে ওই গার্মেন্টকর্মীর। আর বন্ধুত্ব গড়ে ওঠে সোহেলের সঙ্গে। সম্প্রতি প্রেমিকাকে গ্রামের বাড়িতে বেড়ানোর প্রস্তাব দেয় শাহীন। গত রবিবার রাতে ময়মনসিংহে আসেন ওই নারী। পরে তাঁকে ঈশ্বরগঞ্জ পৌরসভার আব্দুল আজিজের বাড়িতে নিয়ে যায় শাহীন ও সোহেল। রাতে খাবার শেষে ওই বাড়ির একটি কক্ষে শুয়ে পড়েন ওই গার্মেন্টকর্মী। একপর্যায়ে রাত ২টার দিকে বাড়ির দরজা ভেঙে শাহীনের বন্ধু মোস্তফা, রাজ্জাক, নুরুজ্জামান ওই নারীকে ঘর থেকে জোর করে বাইরে নিয়ে যায়। পরে সড়কের পাশে তাঁর ওপর নির্যাতন চালানো হয়। বিষয়টি জানতে পেরে টহল পুলিশ শাহীন, রাজ্জাক ও সোহেলকে গ্রেপ্তার করে। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ঈশ্বরগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) জয়নাল আবেদীন সরকার জানান, গত সোমবার রাতে ভুক্তভোগী বাদী হয়ে ছয়জনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাতপরিচয় তিন-চারজনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছেন। এরই মধ্যে তিন আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

এদিকে ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার আচারগাঁও ইউনিয়নের একটি গ্রামে গত ১ নভেম্বর ধর্ষণের অভিযোগে চাচাতো ভাই শাকিল মিয়ার (১৯) নামে মামলা হয়েছে। এ ঘটনায় গতকাল মঙ্গলবার ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ভুক্তভোগীকে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সুব্রত সাহা জানান, অভিযুক্তকে গ্রেপ্তারে চেষ্টা চলছে।

আশুলিয়ায় মাদরাসা অধ্যক্ষ গ্রেপ্তার : এদিকে নিজস্ব প্রতিবেদক, সাভার (ঢাকা) জানান, ঢাকার আশুলিয়ায় একটি মহিলা মাদরাসার ষষ্ঠ শ্রেণির এক শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের অভিযোগে প্রতিষ্ঠানটির অধ্যক্ষ মোসলে উদ্দিনকে (৫০) আটক করেছে পুলিশ। গত মঙ্গলবার দুপুরে আশুলিয়ার ঘোষবাগ এলাকার মাজীদূন নিসা মহিলা মাদরাসার অধ্যক্ষকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। আশুলিয়া থানার এসআই কামরুল হাসান জানান, গত শুক্রবার বিকেলে মাজীদূননিসা মহিলা মাদরাসার ষষ্ঠ শ্রেণির (১২) ওই শিক্ষার্থীকে কৌশলে নিজ বাড়িতে ডেকে নেন প্রতিষ্ঠানটির অধ্যক্ষ মোসলে উদ্দিন। পরে নিজ কক্ষে ওই শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ করে পালিয়ে যান তিনি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা