kalerkantho

শনিবার । ০৭ ডিসেম্বর ২০১৯। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ৯ রবিউস সানি ১৪৪১     

আশা পূরণ হলো না ভিসি মীজানের

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২১ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আশা পূরণ হলো না ভিসি মীজানের

যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির চেয়ারম্যান হতে নিজের আগ্রহের কথা গণমাধ্যমে জানিয়ে ব্যাপক সমালোচনায় পড়া জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমানের আশা পূরণ হচ্ছে না। যুবলীগের নেতৃত্বের জন্য ৫৫ বছর বয়সসীমা বেঁধে দেওয়ায় সংগঠনটির শীর্ষ নেতা হতে পারছেন না ৬১ বছর বয়স্ক মীজানুর। গতকাল প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে অনুষ্ঠিত যুবলীগ নেতাদের সঙ্গে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার বৈঠকে যুবলীগের নেতৃত্বের এ বয়সসীমা নির্ধারণ করা হয়।

দীর্ঘদিন ধরেই যুবলীগের রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত আছেন মীজানুর রহমান। তিনি বর্তমানে যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সিনিয়র প্রেসিডিয়াম সদস্য। বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য পদে নিয়োগ পেলেও যুবলীগের পদ ছাড়েননি মীজানুর।

সম্প্রতি নানা অপকর্মে যুক্ত হয়ে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েন যুবলীগের চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী। আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা ক্ষুব্ধ হয়ে ওমর ফারুক চৌধুরীকে সাংগঠনিক কাজ থেকে দূরে সরিয়ে দেন। এমন পরিস্থিতিতে একটি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলে সাক্ষাৎকারে শেখ হাসিনা চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য পদ ছেড়ে যুবলীগ চেয়ারম্যানের দায়িত্ব নিতে রাজি আছেন বলে জানান মীজানুর। এ সাক্ষাৎকার প্রচারের পরে সারা দেশে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ মীজানুরের তীব্র সমালোচনা শুরু করেন। পরে মীজানুর তাঁর আগ্রহের কথা ব্যাখ্যা করে গণমাধ্যমে বলেন, সংগঠনের প্রতি ভালোবাসা থেকেই তিনি এ দায়িত্ব নিতে চেয়েছেন।

বর্তমানে যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে গুরুত্বপূর্ণ পদগুলোয় ৬০-৭০ বছর বয়স্ক অনেক নেতাই রয়েছেন। বুড়োদের হাতে যুবলীগের নেতৃত্ব থাকা নিয়ে বিভিন্ন সময়ে সংগঠনটির ভেতরে বাইরে সমালোচনা হয়েছে। নতুন প্রজন্মের চাওয়ার সঙ্গে খাপ খাইয়ে কর্মসূচি নিতেও ব্যর্থ হচ্ছিল যুবলীগ।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা