kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২১ নভেম্বর ২০১৯। ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

মহাদেবপুরে গৃহবধূকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ

পৃথক স্থানে চারজনকে ধর্ষণ ও ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২১ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



নওগাঁর মহাদেবপুরে এক গৃহবধূকে (৪৮) সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দিতে কিশোরীকে ধর্ষণ, বগুড়ার শাজাহানপুরে ছাত্রকে বলাৎকার ও একই জেলার শেরপুর উপজেলায় স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। বালিয়াকান্দির কিশোরীকে অপহরণের পর ঢাকায় এনে ধর্ষণ করা হয়। লক্ষ্মীপুরের রায়পুর উপজেলায় পূত্রবধূকে ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেপ্তার হয়েছেন শ্বশুর। আমাদের নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর—

মহাদেবপুর-বদলগাছী (নওগাঁ) : মহাদেবপুরে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার ঘটনায় শনিবার সন্ধ্যায় অভিযুক্ত তিনজনকে আটক করে পুলিশ। শনিবার রাতে নির্যাতিত গৃহবধূ মহাদেবপুর থানায় মামলা করেন। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন উপজেলার ভীমপুর ইউনিয়নের চকরাজা গ্রামের আফাজ উদ্দীনের ছেলে সিরাজুল ইসলাম (৩৬), রহিমের ছেলে মিঠু (৩৮) ও মৃত কসতুলের ছেলে বাবু (৪০)।

পুলিশ জানায়, ভুক্তভোগী গৃহবধূ বাবার বাড়ি থেকে স্বামীর বাড়ি যেতে ভ্যানযোগে এসে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় উপজেলার সরস্বতীপুর বাজার এলাকার কদমতলী মোড়ে নামেন। সেখান থেকে হেঁটে বাড়ি যাওয়ার পথে তাঁকে জোর করে তুলে নিয়ে বাজারের পাশে পরিত্যক্ত অনন্যা-বর্ষা চালকলের চাতালে চার যুবক ধর্ষণ করেন। পথচারীরা টের পেয়ে ভেতরে গেলে তিন বখাটে পালিয়ে গেলেও সিরাজুল ইসলামকে আটক করা হয়। পরে সিরাজুলকে ভুক্তভোগীর বাড়িতে তালাবদ্ধ করে রাখা হয়। পরদিন সিরাজুলের লোকজন তালা ভেঙে তাঁকে নিয়ে যায়।

রাজবাড়ী : বালিয়াকান্দিতে ধর্ষণের অভিযোগে গতকাল দুই আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তারা হলো উপজেলার বহরপুর দড়িপাড়া গ্রামের সৈয়দ আলী মাতুব্বরের ছেলে নুর আলম (৫০) ও এক কিশোর (১৬)। এ ঘটনায় প্রধান আসামি তৈয়ব আলী (২৫) নুর আলমের ছেলে। গত ১৮ জুলাই সন্ধ্যায় বাড়ির সামনের রাস্তা থেকে মেয়েটিকে মুখে কাপড় বেঁধে একটি মাইক্রোবাসে তুলে নিয়ে অজ্ঞাত স্থানে আটকে রাখেন তৈয়ব ও তাঁর দুই সহযোগী। গত বৃহস্পতিবার মেয়েটি পালিয়ে এসে ঢাকায় নিয়ে ধর্ষণের কথা জানায়।

লক্ষ্মীপুর : রায়পুর উপজেলার দক্ষিণ চরবংশী ইউনিয়নে গত শুক্রবার রাতে ধর্ষণের অভিযোগে শ্বশুরের (৪৫) বিরুদ্ধে থানায় শনিবার রাতে মামলা করেন পুত্রবধূ (১৮)। এর আগে সকালে শ্বশুরকে আটক করে পুলিশ।

শাজাহানপুর (বগুড়া) : শনিবার সন্ধ্যায় শাজাহানপুর উপজেলার শাকপালা উত্তরপাড়ায় আবু বক্কর সিদ্দিক (৩৮) নামে মসজিদের এক মুয়াজ্জিন ঝাড়ফুঁক দেওয়ার কথা বলে ওজুখানায় নিয়ে এক ছাত্রকে (১২) বলাৎকার করেন বলে অভিযোগ। এ ঘটনায় পুলিশ আবু বক্কর সিদ্দিককে গ্রেপ্তার করেছে।

ধুনট (বগুড়া) : শেরপুর উপজেলায় ১০ অক্টোবর সন্ধ্যায় স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টায় অভিযুক্ত প্রাইভেট শিক্ষকের নাম মিনহাজুল ইসলাম (৩৫)। তিনি উপজেলার বিলনোথার গ্রামের আবু সাইদের ছেলে। এ ঘটনায় ছাত্রীর বাবা মিনহাজুলের বিরুদ্ধে শনিবার রাতে শেরপুর থানায় অভিযোগ করেছেন। শেরপুর থানার ওসি হুমায়ুন কবির জানান, তদন্ত করে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা