kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১২ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৪ রবিউস সানি     

আ. লীগকর্মীর রগ কেটে দিলেন যুবলীগ নেতা

নেত্রকোনা ও হাওরাঞ্চল প্রতিনিধি   

২০ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নেত্রকোনার বারহাট্টা উপজেলার আসমা ইউনিয়নের গোড়ল পশ্চিমপাড়া গ্রামে পূর্বশত্রুতার জেরে স্থানীয় আওয়ামী লীগকর্মী উসমান গণির (৫০) পায়ের রগ কেটে দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি ও তাঁর লোকজনের বিরুদ্ধে। উসমান গণিকে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ (মমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

গত শুক্রবার সন্ধ্যার এ ঘটনায় রাতে বারহাট্টা থানায় মামলা করেন আহতের স্ত্রী মোছা. জুলফা আক্তার। রাতেই অভিযুক্ত যুবলীগ নেতা সাইফুল ইসলামকে সদর উপজেলার কসবা গ্রাম থেকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তিনি গোড়ল পশ্চিমপাড়া গ্রামের মৃত কালাচানের ছেলে। মামলার অন্য আসামিরা হলেন সাইফুলের ভাই তরিকুল ইসলাম ও অলি মিয়া, একই গ্রামের মৃত সুলতান মিয়ার ছেলে হাবিব মিয়া এবং ওয়ারেছ আলীর ছেলে দিলু মিয়া ও শফিক মিয়া।

অভিযোগে জানা গেছে, গরুর ধান খাওয়াকে কেন্দ্র করে গোড়ল পশ্চিমপাড়ার উসমান গণির সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে সাইফুল, তরিকুল, অলিদের বিরোধ চলছে। এ নিয়ে কয়েক মাস আগে দুই পক্ষের মধ্যে একাধিকবার বাড়িঘরে পাল্টাপাল্টি হামলা, মারধর ও মামলা করার ঘটনা ঘটে। এরই জেরে শুক্রবার সন্ধ্যায় উসমান গণি বাজার থেকে বাড়ি ফেরার পথে ইউনিয়নের দেওপুর ঈদগাহ মাঠে তাঁর ওপর চড়াও হন সাইফুলের নেতৃত্বে পাঁচ-ছয়জন। তাঁরা রামদা, ছুরি দিয়ে উসমানকে আঘাত করেন। একপর্যায়ে তাঁর বাঁ পায়ের রগ কেটে দেন। তাঁর চিৎকারে এলাকাবাসী এগিয়ে গেলে হামলাকারীরা চলে যান। এলাকাবাসী তাঁকে উদ্ধার করে নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে নেয়। পরে চিকিৎসক তাঁকে মমেক হাসপাতালে স্থানান্তর করেন।

বারহাট্টা থানার ওসি বদরুল আলম খান জানান, মামলার বাকি আসামিদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা